• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ক্ষতিপূরণ বাড়ানোর দাবি

Rescue
ঔরৈয়ায় পথ দুর্ঘটনার পর চলছে উদ্ধারকাজ।—ছবি পিটিআই।

উত্তরপ্রদেশের ঔরৈয়ায় পথ দুর্ঘটনায় মৃত শ্রমিকদের নিকটাত্মীয়দের আর্থিক সাহায্য বাড়ানোর দাবি জানিয়ে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে টুইট করলেন পুরুলিয়া জেলা কংগ্রেস সভাপতি তথা বিধানসভায় কংগ্রেসের ডেপুটি লিডার নেপাল মাহাতো। ওই দুর্ঘটনায় পুরুলিয়ার বাসিন্দা সাত পরিযায়ী শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। রাজ্য সরকারের তরফে মৃত শ্রমিকদের নিকটাত্মীয়দের দু’লক্ষ টাকা করে আর্থিক সাহায্য দেওয়ার ঘোষণা করা হয়েছে। পরিযায়ী শ্রমিকদের দেহ জেলায় পৌঁছনোর আগে রবিবারই প্রতিটি পরিবারের কাছে গিয়ে দু’লক্ষ টাকার ‘চেক’ ও ‘সমব্যথী প্রকল্প’-এর দু’হাজার করে টাকা তুলে দেওয়া হয়েছে।

নেপালবাবু মঙ্গলবার দাবি করেন, ‘‘ওই দুর্ঘটনাতেই ঝাড়খণ্ডের যে পরিযায়ী শ্রমিকদের মৃত্যু হয়েছে, তাঁদের নিকটাত্মীয়দের সেখানকার রাজ্য সরকার চার লক্ষ টাকা করে সাহায্য ঘোষণা করেছে। অথচ, আমাদের রাজ্য একই দুর্ঘটনায় প্রাণ হারানো পরিযায়ী শ্রমিকদের দু’লক্ষ টাকা আর্থিক সহায়তা দিয়েছে। আমাদের দাবি, রাজ্যের মৃত পরিযায়ী শ্রমিকদের পরিবারকে পাঁচ লক্ষ টাকা করে সাহায্য দেওয়া হোক।’’ তিনি জানান, টুইট করে মুখ্যমন্ত্রীকে তিনি অনুরোধ জানিয়েছেন। একই সঙ্গে কেন্দ্রীয় সরকারকেও পাঁচ লক্ষ টাকা করে সাহায্য দিতে হবে বলে নেপালবাবু দাবি করেছেন।

মৃত পরিযায়ী শ্রমিকদের নিকটাত্মীয়কে বাড়তি আর্থিক সহায়তা দেওয়ার দাবি তুলেছে সিপিএমও। পুরুলিয়া জেলা সিপিএম সম্পাদক প্রদীপ রায় বলেন, ‘‘লকডাউনে কর্মস্থল রাজস্থান থেকে ফেরার পথে দুর্ঘটনায় মৃত্যু হওয়া প্রতিটি শ্রমিকের পরিবারই সহায় সম্বলহীন। এমতাবস্থায় প্রতিটি পরিবারকে এককালীন দশ লক্ষ টাকা অনুদান দেওয়া এবং প্রতিটি পরিবারের এক জনকে স্থায়ী কাজের ব্যবস্থা করার অনুরোধ রাজ্য সরকারের কাছে জানানো হয়েছে। রাজ্যের মুখ্যসচিবকে চিঠি লিখে এই অনুরোধ জানানো হয়েছে।’’ 

বিজেপির জেলা সভাপতি বিদ্যাসাগর চক্রবর্তীও বলেন, ‘‘দলের তরফে রাজ্য সরকারের কাছে মৃত শ্রমিকদের নিকটাত্মীয়দের দশ লক্ষ টাকা করে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার দাবি জানাচ্ছি। পাশাপাশি, অসহায় দরিদ্র পরিবারগুলির এক জন করে কাজের ব্যবস্থা করার দাবিও আমরা জানাচ্ছি। এ ছাড়া, আহতদের পাঁচ লক্ষ টাকা করে সাহায্য দিতে হবে।’’

রাজ্যের মন্ত্রী তথা জেলা তৃণমূল সভাপতি শান্তিরাম মাহাতো বলেন, ‘‘রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী পরিযায়ী শ্রমিকদের প্রতি সব সময়েই সহানুভূতিশীল। মৃত শ্রমিকদের পরিবারের সঙ্গে আমরা রয়েছি। ভবিষ্যতেও তাঁদের সুবিধা-অসুবিধার দিকে আমরা নজর রাখব। বিরোধীরা রাজনীতি করার জন্য দাবিদাওয়া তুলছেন।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন