প্রায় এক হেক্টর জমির ফসল তছনছ করে বৃহস্পতিবার সকালে ঝাড়খণ্ডে ফিরল দাঁতাল। দলমার দলছুট হাতিটি মঙ্গলবার রাতে ঝাড়খণ্ড সীমানা পেরিয়ে পুরুলিয়ার বান্দোয়ানে ঢুকে পড়েছিল।

বন দফতর সুত্রে জানা গিয়েছে, বান্দোয়ান ২ বনাঞ্চলের লতাপাড়া হয়ে হাতিটি প্রথমে যমুনা বনাঞ্চলে ধাদকাতে ঢুকেছিল। তারপর মধুবন, দুলুকডি হয়ে লটোঝরনা জঙ্গলে যায় সে। সেখানে বেশ কিছুক্ষণ কাটিয়ে গুড়পানার জঙ্গলে আশ্রয় নেয়। হাতিটির গতিবিধি নজরে রেখেছিল বন দফতরের আধিকারিকেরা।

 আচমকা এলাকায় হাতি ঢুকে পড়ায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে গ্রামে গ্রামে। আতঙ্ক কাটাতে মাইকে প্রচার শুরু করে বান্দোয়ান থানার পুলিশ। বুধবার সন্ধ্যা নামতেই ১৫ সদস্যের একটি হুলা পার্টি হাতির গতিবিধি নজরবন্দি করে। দাঁতালটি গুড়পানা জঙ্গল হয়ে ক্যাম্পের পাশ দিয়ে ঝাড়গ্রামের বকডোবা গ্রামের জঙ্গলে আশ্রয় নেয়। এ দিন সকালে হাতিটি ঝাড়খণ্ডে চলে গিয়েছে বলে জানিয়েছেন বন দফতরের কর্মীরা।

বান্দোয়ান বনাঞ্চলের আধিকারিক হীরককুমার সিংহ বলেন, ‘‘সন্ধ্যা নামতেই হাতিটি বকডোবার জঙ্গলে দিকে যায়। আমাদের কর্মীরা সীমানায় ছিলেন। পরে জানা গিয়েছে, ঝাড়খণ্ডের জঙ্গলে চলে গিয়েছে হাতিটি। ক্ষয়ক্ষতি তেমন কিছু হয়নি। হাতিটি ধান জমি মাড়িয়ে গিয়েছে। আমরা জানতে পেরেছি, এক হেক্টর জমির ধান নষ্ট হয়েছে।’’