• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

পাচার রুখতে টাস্ক ফোর্স

main
উদ্বোধন: রঘুনাথপুরে বন দফতরের অনুষ্ঠানে মন্ত্রী। ছবি: সঙ্গীত নাগ

বন দফতরের জমির চরিত্র বদল ঘটিয়ে জমি-মাফিয়ারা ব্যবসায়ীদের কাছে তা বিক্রি করছে। দফতরের কিছু আধিকারিকেরাও এই যোগসাজসে যুক্ত। বৃহস্পতিবার রঘুনাথপুরে ‘বনবান্ধব উৎসব’-এর মঞ্চ থেকে এমনই মন্তব্য করলেন বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। জমি-মাফিয়াদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার পাশাপাশি, জেলায় বন্যপ্রাণীদের চোরাচালান রুখতে টাস্ক ফোর্স গঠনের কথা জানিয়েছেন তিনি।

এ দিন প্রথমে বক্তব্য রাখতে গিয়ে পুরুলিয়ার জেলা সভাধিপতি সুজয় বন্দ্যোপাধ্যায় বন দফতরের জমি অবৈধ ভাবে দখল হয়ে যাওয়ার অভিযোগ তুলে বিষয়টি বনমন্ত্রীকে দেখতে অনুরোধ করেন। তার পরেই মঞ্চ থেকে জমি মাফিয়াদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার বার্তা দেন বনমন্ত্রী। পরে সাংবাদিকদের বলেন,‘‘ জেলায় এসে শুনলাম, কিছু জমি মাফিয়া দফতরের এক শ্রেণির আধিকারিকের সঙ্গে যোগসাজস করে, দফতরের জমির চরিত্র বদল করে ব্যবসায়ীদের হাতে তুলে দিচ্ছে। এ ধরনের কাজকর্ম কড়া হাতে বন্ধ করা হবে।’’ বিষয়টি দেখতে জেলাশাসক রাহুল মজুমদারকেও নির্দেশ দেন তিনি। প্রয়োজনে জেলায় এসে নিজে অভিযান চালানোর কথাও বলেন। পাশাপাশি, পুরুলিয়ায় বন দফতরের হাতে থাকা জমি নিয়ে ‘ল্যান্ড ব্যাঙ্ক’ তৈরি নির্দেশ দেন।

প্যাঙ্গোলিন পাচার চক্রের বিরুদ্ধেও বন দফতর ও পুলিশকে সক্রিয় হতে এ দিন নির্দেশ দেন মন্ত্রী। গত বছর পাড়া থানা এলাকায় প্যাঙ্গোলিন উদ্ধার করেছিল পুলিশ ও বন দফতর। ঝাড়খণ্ড থেকে সেটিকে কিনতে আসা কয়েক জনকে গ্রেফতারও করা হয়। সূত্রের খবর, বুধবার রাতে জেলায় আসার পরে সে ঘটনা কানে যায় বনমন্ত্রীর। সে প্রসঙ্গ তুলে এ দিন তিনি বলেন,‘‘চোরাচালান-সহ অসাধু কারবার বন্ধে উত্তরবঙ্গে ইতিমধ্যেই টাস্ক ফোর্স গড়েছি আমরা। এ বার দক্ষিণবঙ্গেও টাস্ক ফোর্স গড়া হচ্ছে।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন