• নিজস্ব সংবাদদাতা 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

তৃণমূল নেতাদের নামে ফের পোস্টার

Mao poster
পোস্টার। নিজস্ব চিত্র

মঙ্গলডিহির পরে এ বার পাড়ুইয়ের বাতিকার। তৃণমূল নেতাদের হুমকি দিয়ে ফের মাওবাদী নামাঙ্কিত পোস্টার দেখা গেল। ওই পোস্টারে লেখা, ‘জনগণের টাকা ফেরত দাও, না হলে জীবন দাও’। তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি, এর পিছনে রয়েছে বিজেপি। বিজেপি তা উড়িয়ে দিয়েছে। জেলার পুলিশ সুপার শ্যাম সিংহ বলেন, ‘‘এই পোস্টারগুলি মাওবাদীদের লেখা নয়। কারা এই ধরণের কাজ করছে খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’’ এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার বা আটকের খবর নেই।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বুধবার পাড়ুই থানার মঙ্গলডিহি অঞ্চলের বিভিন্ন গ্রামে তৃণমূল নেতাদের নামে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে বিভিন্ন পোস্টার দেখা গিয়েছিল। এই নিয়ে এলাকায় কৌতূহল তৈরি হয়। 

ঠিক তার চার দিন পরে রবিবার সকালে লাল কালি দিয়ে লেখা একই ধরনের পোস্টার বাতিকার অঞ্চলের পুরনো বাসস্ট্যান্ডের কাছে এলাকার বাসিন্দারা দেখতে পান। পোস্টগুলিতে তৃণমূলের ইলামবাজার ব্লক সহ সভাপতি, প্রাক্তন বুথ সভাপতি, প্রাক্তন উপপ্রধান, অঞ্চল কমিটির সদস্য সহ একাধিক নেতাকর্মীর নাম রয়েছে। খবর জানাজানি হওয়ার পরে পোস্টারগুলি ছিঁড়ে ফেলা হয়। পরে পুলিশ এসে ছেঁড়া কিছু পোস্টার উদ্ধার করে নিয়ে যায়। এই পোস্টার ঘিরে রাজনৈতিক চাপানউতর শুরু হয়েছে। 

তৃণমূলের জেলা সহ সভাপতি অভিজিৎ সিংহের অভিযোগ, ‘‘এটা বিজেপির লোকেদের কাজ। এই সব করে ভোটের আগে আমাদের কর্মীদের ভয় দেখানোর চেষ্টা করছে বিজেপি। কিন্তু, এতে লাভ হবে না।’’ একই অভিযোগ করেছেন তৃণমূলের ইলামবাজারের ব্লক সভাপতি ফজলুর রহমান। তাঁর দাবি, ‘‘বিজেপি এই সমস্ত অঞ্চলে প্রকাশ্যে কোনও কর্মসূচি করতে পারছে না বলে রাতের অন্ধকারে পোস্টার সাঁটিয়ে দলীয় কর্মীদের ভয় দেখানোর চেষ্টা করছে। পুলিশ এর তদন্ত করুক।’’

এমন অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন বিজেপির জেলা সভাপতি শ্যামাপদ মণ্ডল। তিনি বলেন, ‘‘বিজেপি এই ধরনের কাজে কোনও ভাবেই যুক্ত নয়। সমস্ত কাজ তৃণমূল নিজে করে বিজেপিকে বদনাম করার চেষ্টা করছে। আমরা প্রশাসনকে এই বিষয়ে নিরপেক্ষ তদন্ত করতে বলব। আসলে তৃণমূলের নেতাকর্মীরা যে ভাবে সরকারি প্রকল্পের টাকা লুট করেছেন, এটা সেই কোন্দলের বহিঃপ্রকাশ।’’ 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন