• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

করোনা আক্রান্ত পুলিশ অফিসার

Police
প্রতীকী ছবি।

করোনা আক্রান্ত হলেন রামপুরহাট থানার এক পদস্থ অফিসার। বুধবার রাতে ওই পুলিশ অফিসারের করোনা পজ়িটিভ ধরা পড়ে। রাতেই তাঁকে রামপুরহাটের কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এই প্রথম রামপুরহাট মহকুমা এলাকায় কোনও পুলিশ অফিসার করোনা আক্রান্ত হলেন।

বৃহস্পতিবার সকালে ওই পুলিশ অফিসারের স্ত্রীর অ্যান্টিজেন টেস্ট হয়। স্ত্রীরও করোনা পজ়িটিভ ধরা পড়ে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, রামপুরহাট থানার ওই অফিসার দু’দিন ধরে জ্বরে ভুগছিলেন। থানায় আসছিলেন না। থানা সংলগ্ন একটি বাড়িতে থাকছিলেন। বুধবার সকালে রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে তাঁর অ্যান্টিজেন টেস্ট হয়। রামপুরহাট থানা সূত্রে জানা গিয়েছে, পুলিশ অফিসার যে বাড়িতে থাকতেন সেই এলাকা কন্টেনমেন্ট জোন করা হবে। ওই পুলিশ অফিসারের সংস্পর্শে কতজন এসেছিলেন তাও খোঁজ নিচ্ছে স্বাস্থ্য দফতর।

বুধবার রামপুরহাট বাস স্ট্যান্ড সংলগ্ন একটি বেসরকারি ব্যাঙ্কের গোল্ড লোন বিভাগের এক কর্মী করোনা আক্রান্ত হন। বৃহস্পতিবার ওই ব্যাঙ্কেরই ক্যাশিয়ারের করোনা পজ়িটিভ ধরা পড়ে। বেসরকারি ওই ব্যাঙ্কের ক্যাশিয়ারের আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা উদ্বেগ বাড়িয়েছে প্রশাসনের। বুধবার পর্যন্ত ওই ক্যাশিয়ার ব্যাঙ্কে কাজ করেছেন। এর মধ্যে কতজন ক্যাশিয়ারের সংস্পর্শে এসেছেন তা বের করা মুশকিল বলে প্রশাসন সূত্রে দাবি।

বুধবার ওই ব্যাঙ্ক এলাকা কন্টেনমেন্ট জ়োন হিসেবে চিহ্নিত করেছে প্রশাসন। ব্যাঙ্কের ঊর্দ্ধতন কতৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে তিন দিন ব্যাঙ্কের কাজকর্ম বন্ধ রাখার জন্য নির্দেশও দিয়েছে প্রশাসন। বুধবার রাতেই এলাকা বাঁশ দিয়ে ঘিরে গণ্ডিবদ্ধ করে দেওয়ার কথা থাকলেও বৃহস্পতিবার বিকেল পর্যন্ত এলাকা ঘেরা হয়নি। বৃহস্পতিবার বিকেলে এলাকায় জীবাণুনাশ করা হয়।

অন্য দিকে জেলায় করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধিতে কন্টেনমেন্ট জোনের সংখ্যাও বৃদ্ধি পেয়েছে। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে বীরভূম জেলায় বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত ১২৭টি কন্টেনমেন্ট জোন করা হয়েছে। তার মধ্যে রামপুরহাট স্বাস্থ্য জেলার মুরারই এবং নলহাটি থানার গ্রামীণ এলাকায় কন্টেনমেন্ট জ়োনের সংখ্যা বেশি। এ ছাড়া শহরাঞ্চলে নলহাটি এবং রামপুরহাট— এই দুই পুরসভা এলাকায় কন্টেনমেন্ট জোনের আধিক্য সব থেকে বেশি। নলহাটি পুরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডে তিন দিন আগে একটি পরিবারের ১১ জন সদস্য করোনা পজ়িটিভ ধরা পড়ে। রামপুরহাট পুরসভাতেও তিন দিন আগে ১১ নম্বর ওয়ার্ডে একটি পরিবারের ৫ জন করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন