• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ছাত্র সংগঠনের কর্মসূচি ঘিরে প্রকাশ্যে ‘দ্বন্দ্ব’

Protest
বড়জোড়া চৌমাথা মোড়ে বিক্ষোভ অবস্থান। রয়েছে পুলিশও। নিজস্ব চিত্র

তৃণমূল ছাত্র পরিষদের কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব ‘প্রকাশ্যে’ এল বাঁকুড়ার বড়জোড়ায়। দলের অনুষ্ঠানে হাজির না থেকে আলাদা ভাবে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করলেন সংগঠনের কর্মীদের একাংশ। বিষয়টিকে কেন্দ্র করে ‘অস্বস্তি’তে পড়েছেন জেলা নেতৃত্বও।

পেট্রো-পণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে সোমবার মিছিল করে রক্তদান শিবিরের আয়োজন করেছিল বড়জোড়া ব্লক তৃণমূল ছাত্র পরিষদ। বড়জোড়ার একটি লজে আয়োজিত শিবিরে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক শুভাশিস চক্রবর্তী ও মণিকান্ত কাড়িয়া, জেলা সভাপতি তীর্থঙ্কর কুণ্ডু, বড়জোড়া ব্লক সভানেত্রী স্নেহা মুখোপাধ্যায় প্রমুখ।

ওই অনুষ্ঠানে যোগ না দিয়ে বড়জোড়া চৌমাথায় পেট্রল ও ডিজ়েলের দর বৃদ্ধির প্রতিবাদে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু করেন এলাকায় তৃণমূল ছাত্র পরিষদের কর্মী বলে পরিচিতদের একাংশ। সংগঠনের নেতাদের একাংশের অভিযোগ, চৌমাথার অবস্থান মঞ্চ থেকে নাম না করে সংগঠনেরই কিছু নেতার বিরুদ্ধে ‘আপত্তিকর’ মন্তব্য করা হয়। পরিস্থিতি উত্তপ্ত হওয়ার আশঙ্কায় চৌমাথায় এ দিন বাড়তি পুলিশও নামানো হয়েছিল।

তৃণমূল ছাত্র পরিষদের বাঁকুড়া জেলা সভাপতি তীর্থঙ্কর কুণ্ডু বলেন, ‘‘আমাদের ব্যানার নিয়ে বড়জোড়া চৌমাথায় কিছু লোক বিক্ষোভ করেছেন বলে শুনেছি। তবে ওই অনুষ্ঠানের সঙ্গে দলের কোনও যোগ নেই। কারা সেখানে ছিল, ব্লকের সভানেত্রীকে লিখিত ভাবে জানাতে বলেছি।’’ সংগঠনের ব্লক সভানেত্রী স্নেহা মুখোপাধ্যায়ের দাবি, ‘‘আমাদের সংগঠনের কেউ ওই বিক্ষোভে উপস্থিত ছিলেন না। কারা ছিল খোঁজ নিয়ে জানাব।’’

তীর্থঙ্কর জানান, সদ্য পুরনো কমিটি ভেঙে প্রতিটি ব্লকে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সভাপতি নিয়োগ করা হয়েছে। ব্লক কমিটি এখনও গড়া হয়নি। এ দিন বিক্ষোভ-সভায় ছিলেন সংগঠনের বড়জোড়া ব্লকের বিদায়ী কার্যকরী সভাপতি শেখ নঈম। তিনি বলেন, ‘‘ব্লক সভানেত্রী অনুষ্ঠানের বিষয়ে আমাদের কিছু জানাননি। উনি অন্য লবি করেন। দলের জমি শক্ত করতে আমরা এই কর্মসূচি নিয়েছি।’’

বিক্ষোভ সভা থেকে দল-বিরোধী কিছু বলা হয়নি বলেই দাবি নইমের। স্নেহার পাল্টা দাবি, ‘‘নঈমকে ব্যক্তিগত ভাবে অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ করেছিলাম। গোটা বিষয়টি জেলাকে জানাব।’’ তীর্থঙ্কর বলছেন, ‘‘নঈম বড়জোড়া ব্লকে আমাদের পুরনো কমিটির কার্যকরী সভাপতি। নতুন কমিটি গড়া হয়নি। এমনটা কেন হল, তাঁর কাছেও জানতে চাইব।’’

ঘটনায় কটাক্ষ করছে বিরোধী শিবির। সিপিএমের বড়জোড়া এরিয়া কমিটির সম্পাদক সুজয় চৌধুরী বলেন, ‘‘তৃণমূলের অন্দরের নোংরা রাজনীতি আজ প্রকাশ্যে এসে গিয়েছে। ভরা বাজারে টিএমসিপির এক গোষ্ঠী অপর গোষ্ঠীর হাঁড়ি ভেঙে দিয়েছে। মানুষ যা বোঝার, বুঝে গিয়েছেন।’’ তবে তৃণমূলের বড়জোড়া ব্লক সভাপতি অলক মুখোপাধ্যায়ের বক্তব্য, ‘‘দল ক্রমশ বড় হচ্ছে। এত বড় দলে ভিন্ন মত থাকতেই পারে। কোথাও কোনও তো ঝামেলা হয়নি।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন