সমাবর্তনকে কেন্দ্র করে এ বার সাজ সাজ রব বিশ্বভারতীতে। প্রশাসনিক সূত্রে জানা গিয়েছে, আগামী ১১ নভেম্বর বিশ্বভারতী সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আসছেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ, রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। 

সমাবর্তন অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছে আম্রকুঞ্জে। শুক্রবার সরেজমিনে পরিদর্শন করেন বীরভূমের প্রশাসনিক কর্তারা। 

বিশ্বভারতীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সমাবর্তন কখনও হয়েছে কখনও বন্ধ থেকেছে ফলে নির্দিষ্টভাবে এটি কততম সমাবর্তন তা জানা নেই বিশ্বভারতীর প্রশাসনিক আধিকারিকদেরই। তাই এটিকে বিশেষ সমাবর্তন হিসেবে চিহ্নিত করছেন তাঁরা। সমাবর্তনে রাষ্ট্রপতি ও রাজ্যপালের সফর নিয়ে শনিবার বিশ্বভারতীর কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সভাকক্ষে উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী জেলার প্রশাসনিক কর্তাদের সঙ্গে জরুরি বৈঠক করেন। এ দিনের বৈঠকে উপাচার্য ছাড়াও ছিলেন বিশ্বভারতীর কর্মসচিব আশা মুখোপাধ্যায়, বিশ্বভারতীর বিভিন্ন ভবনের অধ্যক্ষেরা। এই বৈঠকে নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করেন জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুবিমল পাল, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বোলপুর) শিবপ্রসাদ পাত্র, অতিরিক্ত জেলাশাসক (সাধারণ) প্রশান্ত অধিকারী-সহ অন্য প্রশাসনিক কর্তারা। 

বিশ্বভারতী সূত্রে জানা গিয়েছে, এ দিনের বৈঠকে মূলত রাষ্ট্রপতি এবং রাজ্যপালের নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে এক প্রস্থ আলোচনা হয়। রাষ্ট্রপতি এবং রাজ্যপালের নিরাপত্তার পাশাপাশি সমাবর্তন মঞ্চে তাঁদের কোন গেট দিয়ে নিয়ে আসা হবে, কোথায় কোথায় সিসি ক্যামেরা বসানো হবে, কোথায় নো এন্ট্রি জোন করা হবে এই সব নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয় ও একটি খসড়া তৈরি করা হয়। 

এ দিনের বৈঠকের বিষয় নিয়ে বিশ্বভারতীর ভারপ্রাপ্ত জনসংযোগ আধিকারিক অনির্বাণ সরকার বলেন, ‘‘চিরাচরিত প্রথা মেনে এ বারের সমাবর্তন ১১ নভেম্বর আম্রকুঞ্জে অনুষ্ঠিত হবে। এই নিয়ে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষের সঙ্গে জেলা প্রশাসনের একটি বৈঠক হয়েছে। অনুষ্ঠানকে সফল করার লক্ষ্যেই আলোচনা হয়েছে।’’