• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

আস্থা বাড়ল পুলিশে, বলছেন প্রতারিত বৃদ্ধা

old lady
কিছু টাকা ফেরাল শান্তিনিকেতন পুলিশ। নিজস্ব চিত্র

বিশ্বভারতীর অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপিকার অ্যাকাউন্ট থেকে খোয়া যাওয়া টাকার কিছুটা উদ্ধার করতে সমর্থ হল পুলিশ। অভিযোগ হওয়ার এক সপ্তাহের মধ্যেই পুলিশ টাকা উদ্ধার করতে সমর্থ হয়েছে। শুক্রবার উদ্ধার হওয়া ৬০ হাজার টাকা ওই বৃদ্ধার বাড়িতে গিয়ে তাঁর হাতে শান্তিনিকেতন থানার পক্ষ থেকে তুলে দেওয়া হয়। খোয়া যাওয়া টাকা ফিরে পেয়ে খুশি অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপিকা জ্যোতি বন্দ্যোপাধ্যায়। 

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই অধ্যাপিকা শান্তিনিকেতনর সীমান্তপল্লিতে থাকেন। বাড়ির কাজকর্মে সাহায্য করার জন্য গঙ্গামণি দাস নামে নানুরের এক তরুণীকে পরিচারিকা হিসেবে রেখেছিলেন। সেই গঙ্গামণি ও তাঁর সঙ্গী, পাড়ুই থানা এলাকার বাসিন্দা বাহাদুর দাসকে জ্যোতিদেবীর অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা গায়েব করার অভিযোগে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। পুলিশের দাবি, বাড়ির সব কিছুই গঙ্গামণির নখদর্পণে ছিল। বৃদ্ধার বিশ্বাসের সুযোগ নিয়ে এটিএম কার্ড এবং সেটির পিন নম্বরও গঙ্গামণি কোনও ভাবে জেনে নেয়। অশীতিপর ওই বৃদ্ধা বোলপুরে একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কে নিজের পাসবই আপডেট করাতে গিয়ে তিনি দেখেন, মার্চের এক তারিখ থেকে এপ্রিলের ১৯ তারিখ পর্যন্ত পঞ্চাশ দিন ধরে দফায় দফায় ২ লক্ষ ১০ হাজার টাকা তাঁর অ্যাকাউন্ট থেকে লোপাট হয়ে গিয়েছে। এই মর্মে ২০ জুন শান্তিনিকেতন থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। 

শান্তিনিকেতন থানার পাশাপাশি বীরভূম জেলা পুলিশের সাইবার ক্রাইম সেলও ঘটনার তদন্তে নামে। এর পরেই ওই দুই অভিযুক্তকে পুলিশ গ্রেফতার করে পাঁচ দিনের জন্য হেফাজতে নেয়। পুলিশ জানিয়েছে, ধৃতদের জেরা করেই তাঁদের কাছ থেকে ৬০,০০০ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। সেই টাকা এ দিন বিকেলে ওই বৃদ্ধার হাতে তুলে দেওয়া হয়। টাকা পেয়ে খুশি জ্যোতিদেবী বলেন, ‘‘খোয়া যায়া টাকা ফেরত পাব বলে ভাবিনি। এত কম সময়ের মধ্যে কিছুটা টাকা উদ্ধার হওয়ায় পুলিশের উপরে সাধারণ মানুষের আস্থা আরও বাড়ল। এর জন্য পুলিশ-প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানাই। এই ঘটনা যারা ঘটিয়েছে, তাদের উপযুক্ত শাস্তি হোক, এটাই চাইছি।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন