• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

হস্টেলে ছাত্রীর অস্বাভাবিক মৃৃত্যু

Death
প্রতীকী ছবি

অস্বাভাবিক মৃত্যু হল এক কলেজ পড়ুয়ার। পুলিশ জানিয়েছে, মৌসম খাতুন (২১) নামে পুরুলিয়া নিস্তারিণী মহিলা মহাবিদ্যালয়ের ওই ছাত্রীর বাড়ি রঘুনাথপুর থানা এলাকার ধতাড়া গ্রামে। ভূগোল অনার্সের দ্বিতীয়  বর্ষের ওই ছাত্রী কলেজের হস্টেলে থাকতেন। কলেজ সূত্রে জানা গিয়েছে, রবিবার সন্ধ্যায় মৌসমের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয় হস্টেলে তাঁর ঘর থেকেই। পুলিশের দাবি, ঘর থেকে ‘সুইসাইড নোট’ উদ্ধার করা হয়েছে। ওই ছাত্রী আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিক তদন্তে মনে করছে পুলিশ।

কলেজ সূত্রে জানা গিয়েছে, হস্টেলে প্রতিদিন সন্ধ্যায় প্রার্থনা হয়। সেখানে সকল আবাসিকের উপস্থিতি বাধ্যতামূলক। রবিবার প্রার্থনায় মৌসম হাজির ছিলেন না। শরীর খারাপ থাকায় তিনি প্রার্থনায় যাবেন না বলে ‘রুমমেট’দের জানিয়েছিলেন।

কলেজের অধ্যক্ষ ইন্দ্রাণী দেবের দাবি, ‘‘প্রার্থনায় অনুপস্থিত দেখে মৌসমের খৌঁজ করা হয়। তার এক রুমমেট জানায়, মৌসমের পেটে ব্যথা করছে বলে ও আসতে পারেনি। এরপর এক জন ওই ছাত্রীকে ডাকতে গিয়ে দেখে তার ঘরের দরজা ভিতর থেকে বন্ধ। ডাকাডাকি করেও সাড়া না পেয়ে সে চলে আসে।’’ তাঁর সংযোজন, ‘‘এর পরে কয়েকজন হস্টেলের দোতলায় গিয়ে মৌসমের ঘরের দরজা ভাঙে। তখন দেখা যায়, সিলিং ফ্যান থেকে ঝুলছে তার দেহ। সহপাঠীরাই তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। চিকিৎসকেরা মৌসমকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।’’

পুলিশ জানায়, ওই ছাত্রীর ঘর থেকে ওড়না, দড়ি এবং ‘সুইসাইড নোট’ উদ্ধার হয়েছে। সেখানে পারিবারিক সমস্যার কথা লেখা রয়েছে। ঘরটি পুলিশ ‘সিল’ করেছে বলে কলেজ সূত্রে জানা গিয়েছে। 

পুলিশের দাবি, সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত ওই ঘটনায় তাদের কাছে কোনও অভিযোগ দায়ের করেনি মৌসমের পরিবার। তাঁর দাদা খাজিমউদ্দিন আনসারি বলেন, ‘‘রবিবার সন্ধ্যায় কলেজ কর্তৃপক্ষের থেকে খবর পাই, বোনকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। পরে গোটা ঘটনা জানতে পারি। বুঝতে পারছি না বোন কেন এমন করল।’’ সুইসাইড নোটে উল্লিখিত পারিবারিক সমস্যার কথা জানতে চাওয়া হলে খাজিমউদ্দিন বলেন, ‘‘ওই ব্যাপারে কিছু জানি না।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন