Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৭ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

উত্তরপ্রদেশে লাইনচ্যুত জনতা এক্সপ্রেস, মৃত ৩০, জখম ১৫০

উত্তরপ্রদেশে রেল দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৩০। এই ঘটনায় আহত হয়েছেন প্রায় ১৫০ জন যাত্রী। শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টা নাগাদ লাইনচ্যুত

নিজস্ব প্রতিবেদন
২০ মার্চ ২০১৫ ১২:৩৬
Save
Something isn't right! Please refresh.
দুর্ঘটনাগ্রস্ত ট্রেনটি। পিটিআইয়ের তোলা ছবি।

দুর্ঘটনাগ্রস্ত ট্রেনটি। পিটিআইয়ের তোলা ছবি।

Popup Close

উত্তরপ্রদেশে রেল দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৩০। এই ঘটনায় আহত হয়েছেন প্রায় ১৫০ জন যাত্রী।

শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টা নাগাদ লাইনচ্যুত হয় জনতা এক্সপ্রেসের চারটি কামরা। দুর্ঘটনাটি ঘটেছে লখনউ থেকে প্রায় ৫০ কিমি দূরে রায়বরেলি জেলার বাচরাওয়ায়। দুর্ঘটনার ফলে সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে যায় লখনউ এবং বারাণসীর মধ্যে রেল চলাচল।

রেল সূত্রে খবর, ট্রেনটি দেহরাদূন থেকে বারাণসী যাচ্ছিল। দুর্ঘটনায় ট্রেনটির ইঞ্জিন-সহ তিনটি কামরা লাইনচ্যুত হয়। দুর্ঘটনাগ্রস্ত কামরা থেকে যাত্রীদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিত্সকেরা ৩১ জনকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। রায়বরেলি এবং লখনউয়ের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিত্সা চলছে জখম ১০৫ জন যাত্রীর। কামরাগুলির ভিতরে আরও বেশ কিছু যাত্রী আটকে রয়েছেন বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন প্রশাসনিক আধিকারিকেরা।

Advertisement

কী ভাবে ঘটল দুর্ঘটনা?

যাত্রীরা জানিয়েছেন, ট্রেনটি এ দিন কিছুটা দ্রুত বেগেই ছুটছিল। সাড়ে ৯টা নাগাদ স্টেশনে দাঁড়াবার কথা ছিল ট্রেনটির। কিন্তু না থেমে নিজের লাইন পাল্টে লুপ লাইনে চলে যেতে শুরু করে ট্রেনটি। ওই লাইনটি কিছু দূর গিয়ে শেষ হয়ে যাওয়ায় লাইনচ্যুত হয়ে মাটিতে নেমে গিয়ে উল্টে-পাল্টে দুমড়ে মুচড়ে যায় ইঞ্জিন-সহ তিনটি কামরা।

প্রাথমিক ভাবে রেল কর্তৃপক্ষের অনুমান, বাচরাওয়ায় দাঁড়াবার কথা ছিল ট্রেনটির। কিন্তু কোনও ভাবে সিগনাল অগ্রাহ্য করেন ট্রেনটির চালক। তাতেই লাইনচ্যুত হওয়ার ঘটনাটি ঘটেছে বলে মনে করা হচ্ছে। তবে তদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পরই দুর্ঘটনার কারণ স্পষ্ট হবে বলে জানিয়েছেন রেলকর্তারা।


দুমড়ে যাওয়া কামরা।



উত্তর রেলের সিপিআরও নীরজ শর্মা বলেন, “দুর্ঘটনাস্থলে আছেন ডিভিশনাল রেলওয়ে ম্যানেজার। এলাকায় আছেন রেল এবং প্রশাসনের উচ্চপদস্থ কর্তারাও। উদ্ধারকার্য তদরকি করতে এলাকায় পাঠানো হয়েছে রিলিফ ভ্যান। ঘটনাস্থলে আছে অ্যাম্বুল্যান্স। আহতদের প্রাথমিক শুশ্রুষার জন্য আছে মেডিক্যাল টিমও।”

মৃতদের পরিবারকে এককালীন ২ লক্ষ টাকা এবং গুরুতর আহতদের ৫০ হাজার টাকা এবং আহতদের ২০ হাজার টাকা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে রেল। অখিলেশ যাদবের সরকারও মৃতদের পরিবারকে ২ লক্ষ টাকা এবং আহতদের ৫০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে। দুর্ঘটনার পরে প্রয়োজনে রাজ্য সরকারের তরফে রেল ও যাত্রীদের সব রকমের সাহায্য করার আশ্বাসও দিয়েছেন তিনি। মৃতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন রায়বরেলির সাংসদ সনিয়া গাঁধী। আহতদের শুশ্রুষার জন্য উত্তরপ্রদেশ সরকার যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

বাছরাওয়ান, দেহরাদূন, বারাণসী, রায়বরেলি, প্রতাপগড়, হরিদ্বার এবং বরেলিতে হেল্পডেস্ক খুলেছে রেল। হেল্পলাইন নম্বরগুলি হল:— বাছরাওয়ান (০৯৭৯৪৮৪৫৬২১), দেহরাদূন (০১৩৫-২৬২৪০০২), লখনউ (৯৫৪২-২৫০৩৮৪১), বারাণসী (০৫৩৪-২২৫৮১৬১) এবং রায়বরেলি (০৫৩৫-২২১১২২৪)

রেল প্রতিমন্ত্রী মনোজ সিংহ জানিয়েছেন, দুর্ঘটনাটি কী ভাবে ঘটল, তা জানতে ‘কমিশনার অফ রেলওয়ে সেফটি’ ( উত্তর শাখা)-র নেতৃত্বে উচ্চপর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। উদ্ধারকার্যের তদরকিতে নজর রেখেছেন কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী সুরেশ প্রভু। তিনি রেলওয়ে বোর্ডের চেয়ারম্যান এ কে মিত্তল এবং বোর্ডের সদস্য (ট্রাফিক) অজয় শুক্লকে বাচরাওয়ায় যেতে নির্দেশ দিয়েছেন।

ছবি: পিটিআই।



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement