শহুরে হোটেলের সাজানো ডায়াস। ফাঁকা। দর্শক আসনে মূলত সাংবাদিককুল। অপেক্ষা ধীরে ধীরে বদলে যাচ্ছে অসহিষ্ণুতায়।

হঠাত্ই গুঞ্জন... ‘এসে গেছে, এসে গেছে।’ ভরে গেল সামনের ‘রিজার্ভড’ টেবিল। এসে বসলেন টলিউডের তিন নায়ক, এক নায়িকা, তিন পরিচালক এবং বিশিষ্টরা।

না! অডিয়েন্সে অসহিষ্ণুতা হয়তো তখন আর নেই। শুরু হয়েছে কেজো ব্যস্ততা। তবে পরিবেশটা কিছুক্ষণ পরে বদলে গেল স্বতঃস্ফূর্ত হাততালিতে। তখন জায়েন্ট স্ক্রিনে চলছে ‘বাঘ বন্দি খেলা’র ট্রেলার। কাউন্টডাউন শুরু হল আগামী ১৬ নভেম্বরের। কারণ ওই দিনই মুক্তি পাবে এই ছবি।

আরও পড়ুন, ‘এয়েচো?...’ শব্দচয়নে ট্রোলড দিতিপ্রিয়া!

‘বাঘ বন্দি খেলা’ বহু অর্থেই মাইলস্টোন। এই প্রথম একটা ছবিতে কাজ করলেন প্রসেনজিত্ চট্টোপাধ্যায়, জিত্ এবং সোহম। তিনটি আলাদা গল্প‘বাঘ’, ‘বন্দি’ এবং ‘খেলা’। তিন পরিচালক রাজা চন্দ, সুজিত মণ্ডল এবং হরনাথ চক্রবর্তী ফ্রেমবন্দি করেছেন তিন নায়ককে। সেই উপলক্ষেই বৃহস্পতিবার সন্ধেয় আয়োজিত সাংবাদিক বৈঠকে হাজির ছিলেন তারকারা।


‘খেলা’র দৃশ্যে প্রসেনজিত্।

এই প্রজেক্টে প্রসেনজিত্-হরনাথ জুটির ছবি ‘খেলা’। প্রসেনজিত্ স্মৃতি হাতড়ালেন, ‘‘আমরা প্রায় ২৬টা ছবি একসঙ্গে করেছি। হর-র সঙ্গে কাজ করার টেনশন থাকে, ভয়ও থাকে আমার। ওর সব কিছুই আমার থেকে জেনে নিতে হবে। এটা চাপের। হা হা...। আসলে ও আমার চোখ দেখলে বুঝতে পারে, আমি কী চাইছি। আবার ওকে দেখলে আমি বুঝতে পারি, শটটা আবার ও চাইছে কিনা...।’’ এই ছবি শান্তিলাল মুখোপাধ্যায়, অঞ্জনা বসু, ঋত্বিকা সেনের মতো শিল্পীর অভিনয়ে সমৃদ্ধ।

আরও পড়ুন, যমজ সন্তানের বাবা-মা হলেন সম্রাট-ময়না

সুজিত মণ্ডল, সোহম জুটির ছবি ‘বন্দি’। শ্রাবন্তী, বিশ্বনাথ বসু, ভরত কলও রয়েছেন ফ্রেম জুড়ে।বেনারসে শুটিংয়ের গল্প করতে গিয়ে সোহম বললেন, “এই ছবির শুটিংয়েই প্রথম বেনারস গিয়েছিলাম। ক্যামেরার সামনে বা পিছনে সবাই দৌড়েছে। শুটিংয়ের ফাঁকে গরম জিলিপি বা রাবড়ি তো ছিলই। কিন্তু প্রায় ৪৫ ডিগ্রি তাপমাত্রায় কাজ করেছি আমরা। অ্যাডভেঞ্চার রাইড বলতে পারেন। আমার তো মনে হয় ছবিটা সকলের ভাল লাগবে।’’ বিশ্বনাথকে সাধারণত কমিক চরিত্রেই দেখতে অভ্যস্ত দর্শক। কিন্তু এ ছবিতে? অভিনেতা আভাস দিলেন, ‘‘কমে়ডি তো বহু করেছি। এ ছবিতে অন্য কিছু আছে।’’


‘বন্দি’তে শ্রাবন্তী এবং সোহম।

জিত্-সায়ন্তিকাকে নিয়ে ‘বাঘ’ তৈরি করেছেন রাজা চন্দ। তবে গোটা ছবির গল্প এন কে সলিলের ব্রেন চাইল্ড। ব্যাঙ্ককে এ ছবির একটি কঠিন স্টান্ট দৃশ্যের শুটিং নিজেই করেছেন জিত্। তাঁর কথায়, ‘‘ভয়কে আগে জিততে হবে। এটাই আমাদের আইডিয়া ছিল।’’ তিনি এ ছবির বাঘ। তাঁকে কী ভাবে সামলালেন বাঘিনী অর্থাত্ সায়ন্তিকা? হাসতে হাসতে নায়িকার জবাব, ‘‘বাঘকে তো কন্ট্রোল করতেই হত। কতটা কন্ট্রোল করতে পেরেছি সেটা সিনেমা হলে গিয়ে দেখতে হবে।’’

আরও পড়ুন, দেওয়ালি সেলিব্রেশনে মন খারাপ সোনালির…

জিত্ গঙ্গোপাধ্যায় রয়েছেন এ ছবির সঙ্গীত পরিচালনার দায়িত্বে। এ ছবিতেই প্রথম জিতের সুরে গান গেয়েছেনঅনুপম রায়। ছবির টাইটেল সং গেয়েছেন রূপম। এ ছাড়াও সোনু নিগম, শ্রেয়া ঘোষাল, আরমান মালিক গান গেয়েছেন এই ছবিতে।


‘বাঘ’-এর দৃশ্যে সায়ন্তিকা এবং জিত্।

সুরিন্দর ফিল্মসের প্রোডাকশন হলেও এ ছবির প্রযোজনা করেছে জলসা মুভিজ। তাঁদের তরফে সৌম্য চৌধুরী এ ছবির সৃজনশীল পরিচালক। প্রথমে টিভিতে দেখানো ঠিক হলেও পরে সিনেমা হলে রিলিজ করার কথা ভেবেছেন কর্তৃপক্ষ।

একই ছবিতে তিন নায়ক, তিন পরিচালক, তিন নায়িকা। ফলে অভিনয়ের লড়াই ভালই জমবে বলে আশা করছেন অনুরাগীরা।পুজোর পরই আসল ব্লকবাস্টার ছবি রিলিজ হতে চলেছে বলেও মনে করছেন টলি মহলের একটা বড় অংশ।

(কোন সিনেমা বক্স অফিস মাত করল, কোন ছবি মুখ থুবড়ে পড়ল - বক্স অফিসের সব খবর জানতে পড়ুন আমাদের বিনোদন বিভাগ।)