অচলাবস্থা কাটল স্টুডিও পাড়ায়। কাল থেকে শুটিং শুরু হচ্ছে  টালিগঞ্জে। আজ নবান্নতে সব পক্ষের সঙ্গে বৈঠকের পর এই ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী। ভবিষ্যতে যাতে আর কোনও সমস্যা না হয়, সেই জন্য একটি জয়েন্ট কনসিলিয়েশন কমিটি তৈরির কথাও জানান তিনি। এই কমিটিতে রাখা হয়েছে প্রযোজক, কলাকুশলী, পরিচালক, অভিনেতা ও চিত্রনাট্যকারদের প্রতিনিধিদের। প্রতি মাসে একদিন করে বৈঠক করবে এই কমিটি।

কমিটিতে মুখ্য উপদেষ্টা হিসেবে রাখা হয়েছে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়কে। সাংবাদিক বৈঠকে সৌমিত্র জানান, ‘‘মুখ্যমন্ত্রীর পৌরোহিত্যে খুব সহজেই মিটে গিয়েছে সমস্যা। আপনারা এই বার্তাটুকুই পৌঁছে দিন। কার সঙ্গে কী ঝগড়া সেই সব লিখবেন না।’’

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় ছাড়াও এই কমিটিতে আছেন প্রযোজক শ্রীকান্ত মোহতা, অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, পরিচালক অরিন্দম গঙ্গোপাধ্যায়। কলাকুশলীদের পক্ষ থেকে আছেন স্বরূপ বিশ্বাস, আছেন চিত্রনাট্যকার লীনা গঙ্গোপাধ্যায়ও। এছাড়া স্টার জলসা, জি বাংলা ও কালার্স সহ টেলিভিশন চ্যানেলগুলির প্রতিনিধিদেরও এই কমিটিতে রাখা হয়েছে।

দেখুন ভিডিয়ো

 

 

আনন্দবাজার ডিজিটালকে প্রসেনজিৎ বলেন, ‘‘এটা খুবই সুখবর। কাল থেকে কাজ শুরু হচ্ছে। দিদির নেতৃত্বে কমিটি তৈরি হয়েছে। সেই কমিটিতে সব পক্ষের প্রতিনিধিই থাকছেন।’’

তা হলে দাবিদাওয়ার বিষয়টির কী হবে? প্রসেনজিৎ বলেন, ‘‘আমি এটাকে দাবিদাওয়া বলতে চাই না। ১০ হাজার মানুষ এক সঙ্গে কাজ করলে সমস্যা হবেই। কোনও সমস্যা হলে এই কমিটি দেখবে যাতে কারও কোনও সমস্যা না হয়। আমি আবার বলছি, আমাদের কোনও দাবি নেই। অজস্র মানুষ এই সব ধারাবাহিকের জন্য বসে থাকেন। তাঁদের সময়টা আবার ফিরিয়ে দিচ্ছি। তাঁরা আরও ভাল ভাল গল্প পাবেন। সবাই মিলেমিশে কাজ করাটাই মোদ্দা কথা।’’

সিরিয়ালের লেখক লীনা গঙ্গোপাধ্যায় বলেন,‘‘মাননীয় মুখ্যমন্ত্রীর নেতৃত্বে যে কমিটি বৃহস্পতিবার মিটিংয়ের মাধ্যমে গঠন হল সেটা ইন্ডাস্ট্রির বর্তমান প্রেক্ষিতে খুবই জরুরি বলে আমি মনে করছি। শুক্রবার থেকে শুটিং আরম্ভ হবে।’’ তাঁর কথায়:‘‘আশা করি ভবিষ্যতে এই ধরনের কিছু ঘটনা ঘটবে না। কারণ, ছোট ছোট সমস্যা আমরা এই কমিটির মাধ্যমেই মিটিয়ে ফেলতে পারব।’’

আরও পড়ুন: রাতারাতি বদলে গেল স্কুল সার্ভিসের ওয়েট লিস্ট, শীর্ষে সদ্য তৃণমূলে যোগ দেওয়া নেতার মেয়ে!