×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৭ মার্চ ২০২১ ই-পেপার

‘ককটেল’-এর দীপিকার মতো ‘মন্দ মেয়ে’ হওয়ার ইচ্ছে রানিমার!

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৬ জানুয়ারি ২০২১ ১৭:৫১
দিতিপ্রিয়া রায়

দিতিপ্রিয়া রায়
ইনস্টাগ্রাম

বাংলায় যতটুকু যশ পেয়েছেন, সেটা ধরে বসে থাকতে চান না তিনি। সব ভুলে গিয়ে কলকাতার বাইরে গিয়ে 'স্ট্রাগল' করতে হলে তাতেও রাজি তিনি। শূন্য থেকে শুরু করতে হলেও তাই করবেন। তিনি আজ বাংলার ঘরে ঘরে। সকলের শ্রদ্ধা এবং আদরের রানিমা। তিনি অষ্টাদশী দিতিপ্রিয়া রায়।
দিতিপ্রিয়া তাঁর পেশাদার জীবনের আগামী পরিকল্পনা নিয়ে কথা বললেন আনন্দবাজার ডিজিটালের সঙ্গে।
পরিকল্পনার সঙ্গে বাস্তব মিলবে না হয়তো, কিন্তু স্বপ্ন দেখতে কে না চায়? স্বপ্নের তালিকা তৈরিতেও তো কোনও বাধা নেই। আর সেই তালিকার দু’এক টুকরো কথা উঠে এল আড্ডায়।
মেথড অ্যাক্টিংয়ে বিশ্বাসী নন দিতিপ্রিয়া। সুইচ অফ-সুইচ অন করতে জানেন তিনি। যখন ‘করুণাময়ী রাণী রাসমনি’-র রানিমা, তখন তিনি সেটাই। একই দিনে ‘অভিযাত্রিক’-এর শ্যুটিংয়ে তিনি সঙ্গে সঙ্গে ‘অপর্ণা’ হয়ে উঠতে পারেন। তাই আপাতত ভাল কাজের সন্ধান এলে তিনি ছোট পর্দা ও বড় পর্দা-দু'টিকেই সমান তালে চালাতে চান। কিন্তু এটাও তো সত্যি যে রানিমা চিরকাল বেঁচে থাকবেন না। তাঁকে এই পৃথিবী থেকে বিদায় নিতে হবে। তখন দিতিপ্রিয়াকেও বাঙালির ঘর থেকে 'রানিমা' হিসেবে বিদায় নিতেই হবে।

Advertisement

কী করবেন তিনি?

সেই প্রসঙ্গে রানিমার বক্তব্য, তিনি নতুন করে জীবন শুরু করতে চান। শিখতে চান অভিনয়। অনেক কিছু শেখা বাকি বলে তাঁর মত। সে ক্ষেত্রে পুনে ফিল্ম ইন্সটিটিউটের মতো প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হয়ে অভিনয় শেখার ইচ্ছে দিতিপ্রিয়ার।

তখন অনেকটা পরিসর উন্মুক্ত হয়ে যাবে ঠিকই, কিন্তু যদি ‘স্ট্রাগল’ করতে হয়?
রাজি। দিতিপ্রিয়া নবাগত হিসেবে পরিশ্রম করতে রাজি। রানিমার যশ, খ্যাতি- সব কিছুকে পিছনে ফেলে রেখে এগিয়ে যেতে চান। তবে হ্যাঁ, দিতিপ্রিয়া স্বপ্ন দেখার ক্ষেত্রেও অনড়। অভিনেত্রী জানালেন, ‘‘খুব বড় ব্যানারের ছবি হলেও চিত্রনাট্য পছন্দ না হলে আমি কোনও ভাবেই অভিনয় করতে পারব না।’’
কোন ধরনের চরিত্রে অভিনয় করার ইচ্ছে দিতিপ্রিয়ার? খানিক হতাশ হয়ে খানিক মশকরা করেই জানালেন, ‘‘আমি জানি না কেন আমাকে সবাই সাবেকি সাজেই ভালবাসেন। সে রকম চরিত্রেই আমাকে ভাবেন! বলা হয়, আমার চেহারায় নাকি সারল্য রয়েছে। আর সেটাই কাজে লাগে। আমি সেটায় খুবই খুশি হই বটে। কিন্তু ‘ককটেল’ ছবিতে দীপিকার মতো ‘মন্দ মেয়ে’-এর চরিত্রে অভিনয় করারও ইচ্ছে রয়েছে।’’ ডার্ক চরিত্রে অভিনয় করার জন্য তিনি একটি ফোটোশ্যুটও করেছিলেন। তাতেও সবাই তাঁকে ‘বাচ্চা’ হিসেবেই দেখেছেন।তাঁর কথায়, ‘‘আসলে ইন্ডাস্ট্রিতে সবাই আমাকে এত ছোট থেকে দেখছে যে কেউ বিশ্বাসই করতে চায় না আমি বড় হচ্ছি। ১৮ বছর বয়স হয়ে গেছে শুনেও সবাই আমাকে সেই ছোট্ট দিতিপ্রিয়াই ভাবে। ওই আদরটাও আমার বড় পাওনা।’’
বড় পর্দায় অভিনয় করার কথা যখন মাথায় আসছে, সে ক্ষেত্রে ঘনিষ্ঠ কোনও দৃশ্যে অভিনয় করার বিষয়ে কোনও ভাবনা চিন্তা রয়েছে কিনা জিজ্ঞেস করাতে দিতিপ্রিয়ার উত্তর, ‘‘আমি এক জন অভিনেত্রী। কোনও চরিত্রকে ফুটিয়ে তোলার জন্য যদি ঘনিষ্ঠ দৃশ্যে বা সাহসী পোশাক পরতে হয়, আমি তাতে আপত্তি করব না। এটাই তো এক জন অভিনেত্রী হিসেবে আমার দায়িত্ব।’’ কিন্তু রানিমা মনে করিয়ে দিলেন যে, চিত্রনাট্য পড়ে যদি তাঁর ভাল লাগে এবং যদি মনে হয় যে সেই দৃশ্যটির প্রয়োজন রয়েছে, তবেই তিনি সেটা করবেন।

Advertisement