চট করে চরিত্রের মধ্যে ঢুকে পড়া যেন তাঁর বাঁ হাতের খেল! স্বাধীনতা দিবসের ঠিক আগের দিন আবার হাজির তিনি। ভিন্ন দুই অবতারে, আলাদা দুই ছবি নিয়ে হাজির অভিনেতা রাজকুমার রাও। তবে স্বাধীনতার দিনে বাড়তি পাওনা হল দুটো ছবিরই বিষয় দেশ। আর দুই ছবিতেই রাজকুমার। এক দিকে অল্ট বালাজি-র ওয়েব সিরিজ ‘বোস’, অন্য দিকে অমিত ভি মাসুরকরের ‘নিউটন’।

আরও পড়ুন, গণিতজ্ঞের বায়োপিক করছেন হৃতিক রোশন

সিগারেট মুখে সুভাষচন্দ্র বসু। সেই চরিত্রে রাজকুমার রাও। লাইটার দিয়ে সিগারেটে আগুন জ্বালানোর পর ক্ষণেই সেই ‘বোস’ না জানি আপনার মনে কত না প্রশ্নচিহ্ন তৈরি করবে। সেই প্রশ্নচিহ্ন যা এখনও দেশের ইতিহাসে একটা দগদগে ক্ষত হয়ে আছে। কী হয়েছিল সুভাষচন্দ্র বসুর? প্রশ্নচিহ্ন ছুড়ে দিচ্ছে এই ওয়েব সিরিজের টাইটেলও—‘বোস ডেড/অ্যালাইভ’।

 

আরও পড়ুন, মুক্তি পেল প্রিয়ঙ্কা চোপড়ার নতুন গানের অ্যালবাম

বেশ কিছু দিন ধরেই কলকাতাতে শুটিং চলছিল ‘বোস ডেড/অ্যালাইভ’-এর। হংসল মেহতা এবং একতা কপূরের অল্ট বালাজি প্রযোজিত এই ওয়েবসিরিজের পরিচালক পুলকিত্। 
আর এক দিকে ‘নিউটন’। দেশের নির্বাচন প্রক্রিয়া নিয়ে মূলত এই ছবি। আর ভোটের ডিউটি করতে গিয়ে নিউটনকে মাওবাদীদের রোষে পড়তে হয়। তখন তাঁর সহজ অনুধাবন ‘যত দিন নিজেকে বদলাবে না, তত দিন এই দুনিয়ায় কেউ বদলাবে না।’ সে চরিত্রেও রাজকুমার রাও। নিউটনের গতিসূত্র মানুষের রোজকার ১০-৫ টার জীবনেও প্রভাব ফেলে, তার ছোঁয়াও রয়েছে এই ছবিতে। ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব ঘুরে ফেলেছে ‘নিউটন’।  রাজকুমার ছাড়াও ছবিতে রয়েছেন সঞ্জয় মিশ্র এবং অনেকে। ‘নিউটন’ এর প্রযোজক মণীশ মুন্দ্রা এবং তাঁর দৃশ্যয়ম ফিল্মস। ২২ সেপ্টেম্বরের মুক্তি পাবে এই ছবি।