• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

‘গুজরাত দাঙ্গায় মোদীর ভূমিকা নিয়ে ছবি করলে বোর্ড আটকাবে তো?’

Indu-Sarkar
‘ইন্দু সরকার’-এর একটি দৃশ্য। ছবি: টুইটারের সৌজন্যে।

Advertisement

ফের ‘ইন্দু সরকার’ নিয়ে খড়্গহস্ত কংগ্রেস। এ বার তাদের প্রশ্ন, ইন্দিরা গাঁধীর ‘জরুরি অবস্থা’ নিয়ে যদি ছবি হয়, তা হলে  নরেন্দ্র মোদীর আমলের ‘গুজরাত দাঙ্গা’ নিয়ে ছবি কেন হবে না?

‘ইন্দু সরকার’-এর ট্রেলার রিলিজের পর থেকেই কংগ্রেস কর্মী-সমর্থকদের বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয়েছে ছবির পরিচালক-সহ গোটা ইউনিটকে। দফায় দফায় বিক্ষোভ দেখানোর জেরে পরিচালক মধুর ভাণ্ডারকরের জন্য পুলিশি নিরাপত্তার ব্যবস্থাও করতে হয়েছে। কিন্তু, ছবি মুক্তির তিন দিন আগে ফের যে ভাবে বিতর্ক দানা বেঁধেছে তাতে চিন্তিত গোটা টিম। সম্প্রতি কংগ্রেস নেতা এম বীরাপ্পা মইলি জানিয়েছেন ইন্দু সরকার ছবিটি কংগ্রেসের ভাবমূর্তিতে আঘাত করেছে। তার পরেই মইলির প্রশ্ন, ‘‘গুজরাত দাঙ্গায় নরেন্দ্র মোদীর ভূমিকা নিয়ে যদি সিনেমা হয়, তা হলে কি সেন্সর বোর্ড সেই ছবি মুক্তিতে বাধা দেবে?’’ তবে কি ‘ইন্দু সরকার’-এর পাল্টা দিতে গুজরাত দাঙ্গা নিয়ে ছবি চাইছে কংগ্রেস? মইলি কোনও জবাব দেননি।

আরও পড়ুন, লিপস্টিক আন্ডার মাই বুরখা: কঠিন সময়ে দাঁড়িয়ে নির্ভয়ে বলা এক গল্প

সত্তরের দশকে দেশ জুড়ে জরুরি অবস্থার সময়ে রাষ্ট্রীয় নিপীড়নের টুকরো টুকরো ছবি ফুটে উঠেছে ইন্দু সরকারে। সেই কাহিনি বলতে গিয়ে, কেন্দ্রে তত্কালীন ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল কংগ্রেস এবং গাঁধী পরিবারের প্রসঙ্গও এসেছে। ‘ভুল ব্যাখ্যা’ হয়েছে বলে প্রথম থেকেই তীব্র প্রতিবাদে নেমেছিল কংগ্রেস।

কংগ্রেস নেতা এম বীরাপ্পা মইলি ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ছবি—সংগৃহীত।

পরিচালক অবশ্য দাবি করেছেন, ছবিটির ৭০ শতাংশই গল্প। মাত্র ৩০ শতাংশের সঙ্গে বাস্তবের মিল রয়েছে। ছবিটি মুক্তি পাবে আগামী শুক্রবার।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন