বয়ঃসন্ধি চলছে ছেলেটির। শরীরে, মনে প্রতিদিনই নতুন হচ্ছে সে। কৌতূহল এখন তার নিত্যসঙ্গী। দৈনন্দিনের সঙ্গে রয়েছে ভার্চুয়াল জগতের হাতছানিও।

এ হেন ছেলেটি একদিন পর্ন ছবি দেখতে গিয়ে ধরা পড়ল। জুটল বকুনি। এখনও পর্যন্ত এ সমাজে ১৬ বছরের ছেলেমেয়েদের ক্ষেত্রে এ কাজ করে ধরা পড়লে বকুনিটা বোধহয় স্বাভাবিক। কিন্তু তার বাবা শেখাল, গোপন জিনিস গোপনই রাখতে হয়। ছেলের সঙ্গে শেয়ার করল নিজের গোপন বাক্স।

সে অর্থাত্ অনল। জীবনের এক ভয়ঙ্কর সত্যি জানতে পেরে এক সময় দোটানায় পড়ল। তার পর? বাকিটা জানতে গেলে আপনাকে সিনেমা হলে যেতে হবে আগামী ৩০ মার্চ। সে দিনই মুক্তি পাচ্ছে কৌশিক করের প্রথম ছবি ‘পর্ণমোচী’। সেখানেই এই অনলের গল্প বলেছেন কৌশিক।

আরও পড়ুন, ‘ঋদ্ধিকে আমি হিংসে করি’

থিয়েটার কৌশিকের প্রাণের আরাম। অনেকটা নিঃশ্বাস নেওয়ার মতোই। সেখান থেকেই পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের ‘লড়াই’ দিয়ে তাঁর বড়পর্দায় অভিনয়ের হাতেখড়ি। বিরসা দাশগুপ্তের ‘সব ভুতুড়ে’তে অভিনেতা কৌশিকের কাজ ভাল লেগেছিল আম-দর্শকের। আরও কিছু অভিনয়ের অভিজ্ঞতাও রয়েছে ঝুলিতে। সেখান থেকেই পরিচালক হিসেবে ডেবিউ ছবি। এমন একটা বিষয় বেছে নিলেন কেন?

আরও পড়ুন, ‘পরী’র স্ক্রিনিংয়ে হোস্ট বিরাট, গল্প শেয়ার করলেন ঋতাভরী

কৌশিক শেয়ার করলেন, ‘‘পর্ণমোচী একটা থিয়েটার ছিল। পাঁচটা হাউসফুল শো করেছিলাম। তখন প্রোডিউসার পাইনি। তার পর প্রোডিউসার পেলাম, ছবিটা করলাম। আসলে ফ্যান্টাসির সঙ্গে বাস্তবের ভয়ঙ্কর পার্থক্য রয়েছে। সেটা আমরা অনেকেই ভুলে যাই। ভার্চুয়াল ওয়ার্ল্ড ব্যক্তিগত রিলেশনশিপের ওপর নেগেটিভ প্রভাব ফেলে। এটাই এখন বাস্তব। ফলে এটা নিয়েই ছবিটা করলাম।’’


শুটিংয়ের ফাঁকে কৌশিকের সঙ্গে শিল্পীরা।

‘অনল’-এর চরিত্রে অভিনয় করেছেন ঋতব্রত মুখোপাধ্যায়। তাঁর কথায়, ‘‘অনলের সঙ্গে আমার কোনও মিল নেই। ও খুব জটিল মানসিকতার। ফলে ওকে গড়ে তুলতে বেশ সমস্যা হয়েছে আমার। সবটার পিছনে ওর যুক্তিকে দাঁড় করাতে হয়েছে। প্রচুর ওয়ার্কশপ করেছি আমরা। বলতে পারেন, এই চরিত্রটা বেশ চ্যালেঞ্জিং ছিল।’’

এমন একটা জটিল চরিত্রের জন্য কোনও রেফারেন্স ছিল কি? ঋতব্রত বললেন, ‘‘আসলে আমাদের সমাজে সেক্স শব্দটা শুনলে এখনও লোকে দু’বার হেঁচকি তোলে। তবে অনলের মধ্যে যে পারভারশানটা রয়েছে সেটা আমার বেশ কিছু বন্ধু-বান্ধবের মধ্যে রয়েছে। কিন্তু তারা সেটা লুকিয়ে রাখে। এমন কিছু লোকজনের সঙ্গে কথা বলেছিলাম।’’

আরও পড়ুন, ‘অপ্রিয় সত্যি বলে ফেললে প্রিয়পাত্রী হওয়া যায় না’

বিষয় ভাবনার দিক থেকে ‘পর্ণমোচী’ নতুন রসদ দেবে এটা মেনে নিচ্ছেন ইন্ডাস্ট্রির একটা বড় অংশ। প্রথম ছবি মুক্তির আগে কি প্রত্যাশার চাপ রয়েছে কৌশিকের? পরিচালক হেসে বললেন, ‘‘ছবির মেরিট নিয়ে কোনও টেনশন নেই। তবে হল পাব কিনা, টাকা উঠবে কিনা— সে চিন্তা রয়েছে। বাণিজ্যিক টেনশন বলতে পারেন। প্রযোজক টাকা ফেরত না পেলে আমার খুব খারাপ লাগবে।’’

আরও পড়ুন, বিয়ে করে কি কেরিয়ারে পিছিয়ে পড়লেন? মুখ খুললেন সমতা

ঋতব্রত ছাড়াও কনীনিকা বন্দ্যোপাধ্যায়, অনিন্দ্য বন্দ্যোপাধ্যায়, শান্তিলাল মুখোপাধ্যায়, অঙ্কিতা চক্রবর্তীর মতো শিল্পীর অভিনয় দেখার সুযোগ থাকবে এই ছবিতে।