• শান্তশ্রী মজুমদার
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

সচেতনতার বার্তা দিচ্ছে কাকদ্বীপ

Puja Pandal
থিমে সাজছে মণ্ডপ। নিজস্ব চিত্র

সাবেক রীতি থেকে সরে এসে গত কয়েক বছর আগে পর্যন্ত থিম পুজোই হয়ে আসছে কাকদ্বীপে। এ বার সেই সব দৃষ্টিনন্দন থিম থেকে মণ্ডপের সাজে সামাজিক বার্তা দেওয়ার প্রবণতা দেখা যাচ্ছে।

চতুর্থীর দিন কাকদ্বীপের ইয়ং ফাইটার্স ক্লাবে বসছে ‘ব্লু হোয়েল’-এর উপরে আলোচনা শিবির। ক্লাবের কর্মকর্তা বুদ্ধদেব দাস জানালেন, এলাকার বেশ কিছু কিশোর কিশোরীদের ডেকে ওই দিন ওই গেম সম্পর্কে সচেতন করা হবে। তাঁদের কথা শোনা হবে।

কেন পুজোর মধ্যে এ রকম একটি প্রয়াস?

আরও পড়ুন: শিল্পীর হাতে প্রাণ প্রতিষ্ঠা লোহায়

বুদ্ধদেববাবুর কথায়, ‘‘পুজোর ক’টা দিন সামাজিক মিলনের এই ক্ষেত্রটাকে যদি সমাজ সচেতনতার কাজে লাগানো না হয়, তা হলে ক্লাবের আর কী ভূমিকা থাকবে?’’

সতেরোতম বর্ষে পা দেওয়া কাকদ্বীপ রবীন্দ্র সঙ্ঘের থিম এ বার পরিবেশ সচেতনতা। শিল্পী বিশ্বজিৎ পাড়ুই জানালেন, এক দিকে একটি গ্লোব তৈরি করে তাতে আগুন ধরে যাওয়ার একটি মডেল থাকবে। আর অন্য দিকে, মণ্ডপের বিভিন্ন জায়গা করাত দিয়ে সাজানো হবে। মণ্ডপের দেওয়ালগুলিতে বড় বড় করাতের মডেল দর্শনার্থীদের হয় তো একটু অন্য রকম ঠেকতে পারে। কিন্তু পুজোকমিটির সম্পাদক চন্দন ভগতের দাবি, ‘‘পুজোর সময়ে সামাজিক কাজ আমরা করি। কিন্তু এ বার মনে হল, মণ্ডপের মধ্যে যদি নতুন কিছু করে সরাসরি দূষণ বিরোধী বার্তা দেওয়া যায়, তা হলে ভাল হয়।’’ পুজো দেখতে আসা কচিকাঁচাদের গাছের চারাও বিলি করা হবে পুজো মঞ্চ থেকে।

আরও পড়ুন: ভিড়ে এগিয়ে কে, তাল ঠুকছে উত্তর কলকাতা

প্রাকৃতিক সম্পদ বাঁচানোর বার্তা দিয়ে এ বার শুঁটকি মাছের মণ্ডপ, প্রতিমা করছে কাকদ্বীপ রিক্রিয়েশন ক্লাব। আদালতের কাছে ইয়ং স্টাফের মণ্ডপেও এ বার মাদক বিরোধী বার্তার ভাবনা দিতে সমস্ত রকমের মাদক দ্রব্য দিয়েই তৈরি করা হয়েছে শিল্পকর্ম।

থিম থেকে সচেতনতার বার্তার এই সফর কী ভাবে নিচ্ছেন সাধারণ মানুষ?

শিক্ষক তথা কবি দেবদুলাল পাঁজা বলেন, ‘‘আগে কোনও প্রাচীন বাড়ি বা ভিনরাজ্যের কোনও বড় মন্দিরের আদলে মণ্ডপ হত। তাতে সৌন্দর্য্যটাই বড় ছিল। কিন্তু এখন সৌন্দর্য্য বজায় রেখেও থিম পুজোয় বার্তা খুবই প্রশংসনীয়। চিন্তাশীল মানুষ পুজোর পরেও এই বার্তা বহন করবেন।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন