• গৌতম বন্দ্যোপাধ্যায়
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

চণ্ডীপাঠ-কুমারী পুজোয় যেন মিলনমেলা কামারপুকুরে

Kamarpukur
অপেক্ষা: শেষ মুহূর্তের ব্যস্ততা কামারপুকুরে। ছবি: দীপঙ্কর দে

দুর্গাপুজোয় শুধু গোঘাটের কামারপুকুরের আশেপাশের গ্রাম নয়। রাজ্যের বিভিন্ন এলাকা থেকে পুজোর দিনগুলোতে মানুষের গন্তব্যস্থল হয়ে ওঠে কামারপুকুর। শুদ্ধাচারের এই পুজো দেখতে বহু মানুষ ভিড় জমান আশ্রমে। 

বস্তুত পুজোর বহুদিন আগে থেকেই এলাকার বহু গ্রামের সব সম্প্রদায়ের মানুষকে বস্ত্রদানের মধ্যে দিয়ে পুজোর মহড়া শুরু হয়ে যায়। মঠের অধ্যক্ষ লোকোত্তরানন্দ বলেন, ‘‘আমরা ধুতি, শাড়ি, বাচ্চাদের পোশাক আর মুসলমান সম্প্রদায়ের মানুষের জন্য লুঙ্গি, শার্ট, পাঞ্জাবি কিনে দিই। ’’

পঞ্চমী তিথিতে বেলতলায় মায়ের বোধন দিয়ে পুজোর শুরু হয়।  পুজোর প্রতিদিন সকাল এবং সন্ধ্যায় চণ্ডীপাঠ হয়। এ বার মঠে চণ্ডীপাঠ করবেন স্বামী তিতিক্ষানন্দ। কামারপুকুরে বৈদিক মতে দুর্গাপুজো হয়। তাই কামারপুকুরে সন্ন্যাসীরা এই পুজোর পুরোহিত হতে পারেন না। বাঁকুড়ার রামকৃষ্ণ আশ্রম থেকে এ বার কামারপুকুরে দুগার্পুজোর পুরোহিত হিসেবে আসছেন শঙ্করানন্দ চৈতন্য। পুজোরতন্ত্রধারক হিসেবে আসছেন বেলুড় মঠ ও মিশনের ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য স্বামী তত্ত্বাবিদানন্দ।

আরও পড়ুন: সারদা মা-ই এখানে মা দুর্গা

পুজোর ষষ্ঠীর দিন সন্ধ্যাবেলা আমন্ত্রণ বোধন হয় ধুমধাম করে। ওই বোধনের মধ্য দিয়েই দুর্গাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। তিথি অনুয়ায়ী ভোর সাড়ে পাঁচটায় সপ্তমী পুজো হয়। কামারপুকুরে অষ্টমীতে কুমারী পুজো হয়। প্রতিদিন সেখানে সাড়ে সাত থেকে আট হাজার ভক্তপ্রাণ মানুষ মায়ের প্রসাদ পান।

 এ বার অষ্টমীর দিন রাত ৯টা ১৩ মিনিট থেকে নবমী তিথির রাত ১০টা বেজে এক মিনিটে সন্ধিপুজো। মঠের অধ্যক্ষ লোকোত্তরানন্দ বলেন, ‘‘অষ্টমী এবং নবমী তিথির সন্ধিক্ষণকেই বলা হয় সন্ধিপুজো। দুই তিথির ২৪ মিনিট করে নিয়ে ৪৮ মিনিটের ভিতরে এই পুজো শেষ হয়ে যায়। এখানে চামুন্ডা পুজোও হয়।”

আরও পড়ুন: শূন্যে গুলি ছুড়ে সপ্তমী

শ্রী রামকৃষ্ণ এবং সারদা মা পশুবলি রক্তপাত একেবারেই পছন্দ করতেন না। তাই কামারপুকুরে বলি কিন্তু হয় না। তাই চলে আসা প্রথা মেনে নবমীর দিন চাল কুমড়ো বলি হয়। নবমীতে কামারপুকুরে লোক সমাগম সব থেকে বেশি হয়। প্রায় ১৫ হাজার মানুষ সে দিন প্রসাদ পান।

প্রথা অনুয়ায়ী দশমীর দিন হালদার পুকুরে প্রতিমার ভাসান হয়। চালচিত্রের এক চালার ঠাকুর তৈরির কাজ এখন শেষ পর্যায়ে। কামারপুকুরে শুধু অপেক্ষা এখন মায়ের বোধনের।  

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন