Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২২ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

Coronavirus: কোন কোন ভুলে বাড়ছে কোভিড সংক্রমণের আশঙ্কা? করোনা-স্ফীতিতে সুরক্ষিত থাকবেন কী করে

চিকিৎসকদের মতে, আগামী কয়েক দিন যদি সব রকম সুরক্ষাবিধি মেনে চলা যায় সেক্ষেত্রে এই পরিস্থিতি কাটিয়ে ওঠা যাবে। সেজন্য প্রয়োজন অধিক সচেতনতা।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০৮ জানুয়ারি ২০২২ ১০:১০
Save
Something isn't right! Please refresh.


ছবি: সংগৃহীত

Popup Close

করোনা-স্ফীতির এই পর্যায়ে শহর এবং শহরতলি জুড়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। অনেকে চিকিৎসকের মত, পার করে আসা দুটি উৎসবে মাস্কবিহীন উন্মাদনায় এই পর্বের করোনা সংক্রমণকে অনেক বেশি সক্রিয় করে তুলেছে। তবে করোনা সংক্রমণের এই পর্বে আগের দু’বারের তুলনায় হাসপাতালে ভর্তির সংখ্যা বেশ কম। চিকিৎসকদের মতে, সামনের কয়েকটি দিন যদি সব রকম সুরক্ষাবিধি মেনে চলা যায় সেক্ষেত্রে এই পরিস্থিতি কাটিয়ে ওঠা যাবে। তবে তার জন্য চাই অধিক সচেতনতা। এই পরিস্থিতিকে হালকা ভাবে নেওয়া যাবেনা একেবারেই।

দ্বিতীয় বারও করোনা সংক্রমিত হতে পারেন

যে ব্যক্তি আগে এক বার করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, সে পুনরায় আক্রান্ত হতে পারেন। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, পূর্ব-আক্রান্ত ব্যক্তির শরীরে বাড়তি প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হয়। তবে এক বার সংক্রমিত হলে দ্বিতীয় বার সংক্রমণের ভয় থাকে না, এ একেবারে ভ্রান্ত ধারণা।

Advertisement

ওমিক্রনের উপসর্গকে হালকা ভাবে নেবেন না

অনেকেই মনে করছেন যে, ওমিক্রনের ক্ষেত্রে খুবই মৃদু উপসর্গ দেখা দিচ্ছে যা সহজেই মোকাবিলা করা যাবে। বিশেষজ্ঞরা ওমিক্রনকে হালকা ভাবে নিতে বারণ করেছেন। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, ডেল্টার তুলনায় ওমিক্রন কম শক্তিশালী। তবুও ওমিক্রন মৃত্যুর ঝুঁকি বাড়াতে সক্ষম।


ছবি: সংগৃহীত


ঠান্ডা লাগাকে হালকা ভাবে নেবেন না

মাথা ব্যথা, গলা ব্যথা, কাশি বা হালকা জ্বর হলে শীতকালীন ঠান্ডা লাগা বলে এড়িয়ে যাবেন না। এই উপসর্গগুলি দু থেকে তিনদিন স্থায়ী হলে অতি অবশ্যই আরটিপিসিআর বা একটি অ্যান্টিজেন পরীক্ষা করিয়ে নিন। ফলাফল যদি পজিটিভ আসে, তাহলে অতি অবশ্যই অন্তত ১০ দিন নিভৃতবাসে থাকুন।

ভিড় এড়িয়ে চলুন অতি অবশ্যই

করোনার এই পর্বে আক্রান্ত অনেকেরই মৃদু উপসর্গ কিংবা কেউ কেউ উপসর্গহীন। বাড়াবাড়ি রকমের শারীরিক সমস্যা নেই বলে বা হাসপাতালে ভর্তির সংখ্যাটা কম বলে পরিস্থিতিকে লঘু চালে নেওয়ার কোনও কারণ নেই। নিজেকে এবং পরিবারের বাকি সদস্যেদের সুস্থ রাখতে এড়িয়ে চলুন ভিড়।

মাস্ক ছাড়া একেবারেই বেরোবেন না

এতগুলি পর্যায় পেরিয়ে এসেও করোনা-স্ফীতির এই পর্বে সচেতনতার অভাব দেখা যাচ্ছে এখনও। অনেকেই মাস্ক ছাড়া বেরিয়ে পড়ছেন রাস্তায়। কিংবা মাস্ক পরলেও তা যথাস্থানে থাকছে না। এই পরিস্থিতিতে শুধু নিজেকে নয় দায়িত্বশীল নাগরিক হিসাবে চারপাশের মানুষের সুরক্ষার জন্য মাস্ক পরুন। সব রকম সচেতনতা মেনে চলুন।



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement