ক্রমশ ফুলে উঠছেন ইউরোপিয়ানরা। না পকেট ভারী হচ্ছে কি না জানা যায়নি, তবে মেদ জমছে আম ইউরোপিয়ানদের দেহে। ক্রমশঃ স্থুলকায় হচ্ছেন ইউরোপের মানুষ। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)-র হুঁশিয়ারি তেমনই।

সম্প্রতি এক রিপোর্টে হু দাবি করেছে, ইউরোপের জনসংখ্যার ৫৯ শতাংশই স্থুলকায়। চাঞ্চল্যকর রিপোর্টে প্রকাশ, এরকম চলতে থাকলে সমুহ বিপদ। কেন না অতিরিক্ত ওজনের জন্য ইউরোপের নবীন প্রজন্মের বেশি দিন বাঁচায় মুশকিল বলে হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে হু-র তরফে।

কিন্তু কেন ইউরোপে বাড়ছে মোটা মানুষের সংখ্যা?

হু-র দাবি, পুষ্টিকর খাদ্যগ্রহণে বাড়ছে না মেদ। বরঞ্চ প্রতি দিন মদ এবং তামাক সেবনের মাত্রা বাড়ছে ইউরোপে। মদ খাওয়া এবং তামাক সেবনের নিরিখে বিশ্বের মধ্যে প্রথমসারিতে আছে ইউরোপিয়ানরাই। এক জন আম ইউরোপিয়ান প্রতি বছর গড়ে মদ খান প্রায় ১১ লিটার। ইউরোপের ৩০ শতাংশ অঞ্চলেই ধূমপানের হার বিশ্বের অন্য অঞ্চলগুলির তুলনায় খুবই বেশি। হু-র ইউরোপের আঞ্চলিক ডিরেক্টর ডঃ সুজসান্না জাকাব শুনিয়েছেন আরও ভয়ঙ্কর কথা, এই হারে চলতে থাকলে শেষের সে দিন আর বেশি দিন নেই। স্থুলাকায় ব্যক্তির সংখ্যা ঘোরাফেরা করছে ৪৫ থেকে ৬৭ শতাংশ। মাত্রাতিরিক্ত মদ এবং ধূমপানের ফলে ইউরোপে ক্রমে ক্রমে বাড়ছে ক্যানসার, ডায়াবেটিস, হৃদযন্ত্র ঘটিত বিভিন্ন প্রাণঘাতী রোগের সম্ভাবনা।

তাই সাবধান ইউরোপ!

বেছে নিন কোন দিকে যাবেন? মদ-ধূমপানের দিকে না কি পুষ্টিকর খাবার খেয়ে সুস্থ থাকবেন?