Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৯ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

দীপের মুক্তি শীঘ্রই, জানাল পুলিশ

দেবব্রত দাস ও রাজীবাক্ষ রক্ষিত
ইন্দাস ও গুয়াহাটি ২১ মার্চ ২০১৪ ০৩:৩৩
দীপ মণ্ডল

দীপ মণ্ডল

জঙ্গিদের হাতে অপহৃত বাঙালি টেলিকম কর্মী দীপ মণ্ডলের মুক্তির সম্ভাবনা উজ্জ্বল হয়েছে বলে জানাল মিজোরাম পুলিশ। গত চারমাস ধরে মিজো জঙ্গিদের হাতে বন্দি বাঁকুড়ার ইন্দাসের দিবাকরবাটি গ্রামের ওই যুবক। বৃহস্পতিবার মিজোরামের মামিত জেলার এসপি রৌডিংলিয়ানা চাওংথু বলেন, “জঙ্গিদের সঙ্গে মধ্যস্থতাকারীদের আলোচনা চূড়ান্ত পর্যায়ে। সবকিছু এখনও সদর্থক। সামান্য কিছু জটিলতা রয়েছে। তা দ্রুত দূর হয়ে যাবে। দীপের পরিবারের লোকেদের শনিবারের মধ্যে মিজোরামে আসতে বলা হয়েছে।”

বিএ পাস যুবক দীপ তাঁর পিসতুতো দাদা অর্ণব মণ্ডলের কাছে হাতে-কলমে কাজ শিখে একটি বেসরকারি টেলিকম সংস্থায় জুন মাসে যোগ দিয়েছিলেন। দুর্গাপুজোর মুখে সংস্থা বদলে তিনি দিল্লির একটি টেলিকম সংস্থায় যোগ দিয়ে গুয়াহাটি যান। সেখান থেকে ২০ নভেম্বর তিনি মিজোরামের মামিট জেলায় তুইপুইবাড়ির জঙ্গলে একটি মোবাইল টাওয়ার সারাতে গিয়েছিলেন। সেখানেই দীপ ও তাঁর সঙ্গী দুই মিজো যুবককে জঙ্গিরা অপহরণ করে। খবর পেয়ে দীপের পরিবার রাজ্য সরকারের দ্বারস্থ হন। রাজ্যের তরফে মিজোরাম সরকারের সঙ্গেও নিয়মিত যোগাযোগ রাখা হচ্ছে। তবে জঙ্গিরা তাঁদের বাংলাদেশের দুর্গম কোনও এলাকায় আটকে রেখেছে বলে মিজোরাম সরকার জানিয়েছিল। বাংলাদেশের অশান্তির জন্য উদ্ধার কাজে বাধা আসছে বলেও তারা জানায়। মাস খানেক পরে অপহৃত দুই মিজো যুবককে জঙ্গিরা ছেড়ে দিলেও দীপকে ছাড়ার জন্য জঙ্গিরা মোটা টাকার মুক্তিপণ দাবি করে। কিন্তু দীপের পারিবারিক অবস্থা স্বচ্ছল না হওয়ায় ওই টাকা দেওয়া যে তাঁদের পক্ষে সম্ভব নয়, সে কথা জঙ্গিদের জানিয়ে দেওয়া হয়। এর পর থেকে উৎকণ্ঠা বাড়তে থাকে দিবাকরবাটির মণ্ডল পরিবারে। দীপের মুক্তির দাবিতে পথে নেমে আন্দোলনে সামিল হন ইন্দাসের আমজনতা। রাস্তা অবরোধ থেকে এলাকায় বন্ধ পর্যন্ত তাঁরা করেন।

কিন্তু এতদিন কোনও তরফে দীপের খবর না আসায় দীপের পরিজনদের দুশ্চিন্তা বাড়তে থাকে। দুর্ভাবনা কমে এ দিন মামিত পুলিশের ফোন আসার পরে। দীপের পিসতুতো দাদা অর্ণব মণ্ডল বলেন, “মামিত জেলার এক পুলিশ আধিকারিক ফোন করে জানিয়েছেন যে দীপকে খুব তাড়াতাড়ি জঙ্গিরা মুক্তি দেবে। সে জন্য আমাকে মিজোরাম যেতে বলা হয়েছে। দুই-একদিনের মধ্যেই আমি মিজোরাম যাচ্ছি।” তবে দীপের মুক্তির ব্যাপারে বাঁকুড়া জেলা পুলিশের কাছে কোনও খবর আসেনি বলে জানিয়েছেন জেলা পুলিশ সুপার মুকেশ কুমার।

Advertisement

দীপের বাবা নিখিল মণ্ডল বলেন, “দীপকে জঙ্গিরা মুক্তি দিক এটা আমরা বহুদিন ধরেই দাবি জানিয়েছি। এখন ওর মুক্তি দেওয়া নিয়ে কিছু খবর আসায় স্বস্থি পেয়েছি। কিন্তু ছেলে বাড়ি না ফেরা পর্যন্ত শান্তি পাচ্ছি না।” দীপের ফেরার জন্য শুধু তার পরিবার নয়, অপেক্ষায় রয়েছেন ইন্দাসের বাসিন্দারাও।

আরও পড়ুন

Advertisement