Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

৩০ জুন ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

কারাটের ফোন ফিরিয়ে সঙ্কট বাড়ল ভিএসের

কেরল সিপিএমে আরও ঘনীভূত হল ভি এস-সঙ্কট! প্রবীণ নেতার দাবির সঙ্গে সহমত হল না দলের পলিটব্যুরো। আবার স্বয়ং সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ কারাটের অনুরোধ

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০৩:১৭
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

কেরল সিপিএমে আরও ঘনীভূত হল ভি এস-সঙ্কট! প্রবীণ নেতার দাবির সঙ্গে সহমত হল না দলের পলিটব্যুরো। আবার স্বয়ং সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ কারাটের অনুরোধ ফিরিয়ে দিয়ে রাজ্য সম্মেলন বয়কটেই অনড় থাকলেন ভি এস অচ্যুতানন্দন। যার পরিণতিতে আজ, সোমবারই সম্ভবত রাজ্যের বিরোধী দলনেতার পদ থেকে সরে দাঁড়াতে পারেন নবতিপর এই নেতা।

দলের রাজ্য নেতৃত্বের প্রতি ক্ষোভে শনিবার আলাপ্পুঝায় রাজ্য সম্মেলনের মঞ্চ থেকে ওয়াক আউট করে গিয়েছিলেন ভি এস। পিনারাই বিজয়নের নেতৃত্বে রাজ্য সিপিএম যে ভাবে চলছে, তার বিরুদ্ধে অসন্তোষ জানিয়ে সম্মেলনের আগেই দলের পলিটব্যুরোকে চিঠি দিয়েছিলেন বিরোধী দলনেতা। তার জেরে রাজ্য সম্পাদকমণ্ডলী আবার নিন্দা প্রস্তাব নিয়েছিল দলের ওই প্রতিষ্ঠাতা-সদস্যের বিরুদ্ধে! ক্ষুব্ধ ভি এস সম্মেলন শুরুর সন্ধ্যায় কারাটের সঙ্গে দেখা করে এর বিচার চেয়েছিলেন। তাঁর দাবি ছিল, ওই নিন্দা প্রস্তাব প্রত্যাহার করে নেওয়া হোক। কারাট অবশ্য তাঁকে বলেন, এই বিবাদের মীমাংসা সম্মেলনের পরে হবে। কিন্তু সম্মেলনের প্রতিবেদনে তাঁকে তুলোধোনা এবং সম্মেলন-কক্ষে প্রতিনিধিদের তোপের মুখে পড়ে আর ধৈর্য দেখাননি ভি এস। বেরিয়ে গিয়েছিলেন সম্মেলন ছেড়ে। সম্মেলনে আর ফেরেননি তো বটেই, রবিবার ভোরে আলাপ্পুঝার পুরনো বাড়ি ছেড়ে তিরুঅনন্তপুরমে সরকারি বাসভবনে চলে গিয়েছেন! যে ঘটনা সঙ্কটকে আরও ঘনিয়ে তুলেছে!

সিপিএম সূত্রের খবর, সঙ্কটজনক পরিস্থিতিতে এ দিন সম্মেলনের অবসরে বৈঠকে বসেছিলেন পলিটব্যুরোর সদস্যেরা। সম্মেলন উপলক্ষেই কেরলে উপস্থিত আছেন ৭ জন পলিটব্যুরো সদস্য। শীর্ষ নেতৃত্বের আলোচনায় খোদ কারাটের মত, প্রবীণ ভি এসের কিছু ক্ষোভ-উষ্মা থাকতেই পারে। কিন্তু সমালোচনা শুনতে হচ্ছে বলে সম্মেলন থেকে ওয়াক আউট দলের শৃঙ্খলার খাতিরেই মেনে নেওয়া যায় না। তবু মীমাংসা সূত্র বার করতে কারাট নিজেই ফোন করেছিলেন ভি এস-কে। সম্মেলনে ফিরে আসার অনুরোধ জানিয়ে। ভি এস এ দিন ফেরেননি। পলিটব্যুরোও কেরলের রাজ্য নেতৃত্বের পাশে দাঁড়িয়েই সিদ্ধান্ত নিয়েছে, ওই নিন্দা প্রস্তাব প্রত্যাহার করা হবে না।

Advertisement

স্বভাবতই এর পরে প্রশ্ন উঠেছে, প্রতিষ্ঠাতা-সদস্যের সঙ্গে দলের বিচ্ছেদ কি আসন্ন? বিজয়নেরা চাইছেন, শৃঙ্খলারক্ষার কড়া বার্তা দিতে এ বার রাজ্য কমিটি থেকেও বাদ দেওয়া হোক ভি এস-কে। কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব আবার এই অবস্থায় কিছুটা কিংকর্তব্যবিমূঢ়! তাঁরা জানেন, দলের বাইরে ভি এসের জন্য জনসমর্থন বিজয়নদের চেয়ে ঢের বেশি। প্রবীণ নেতার ওয়াক আউটের পরে সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর পক্ষে প্রবল সহানুভূতি সেই জনপ্রিয়তারই ইঙ্গিত দিচ্ছে। আবার শৃঙ্খলার প্রশ্নে বিজয়নদের যুক্তিও উড়িয়ে দেওয়া সম্ভব নয় কারাটদের পক্ষে। সম্মেলনের তৃতীয় দিনের কাজ শেষে দলের পলিটব্যুরো সদস্য কোডিয়ারি বালকৃষ্ণন বলেছেন, “ভি এস দলের প্রবীণ নেতা, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য। তাঁর অভিযোগ বা ক্ষোভ নিয়ে একমাত্র দলীয় স্তরেই আলোচনা হতে পারে। এখানে দরাদরি চলে না!”

সম্মেলনে না ফিরে দলে নিজের পথ নিজেই কঠিন করে ফেলেছেন ভি এস। এর পর আজ সকালেই বিরোধী দলনেতার পদ ছাড়ার ঘোষণা করে দিলে বিকালে তাঁর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করতে সুবিধা হবে রাজ্য নেতৃত্বের। আবার রাজ্য নেতৃত্ব তাঁকে রাজ্য কমিটি থেকেও ছেঁটে ফেললে ভি এস তার পরে কোনও চূড়ান্ত ঘোষণা করে বসতে পারেন। সব দিক থেকেই আজ গোটা সিপিএমের নজর সম্মেলনের অন্তিম প্রহরের দিকে!

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement