Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ ই-পেপার

উত্তরপ্রদেশের মুখ্যসচিব-ডিজির সঙ্গে বৈঠক প্রধান বিচারপতির, খোঁজ নিলেন অযোধ্যার নিরাপত্তার

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ০৮ নভেম্বর ২০১৯ ১৪:০৩
গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ

গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ

অযোধ্যা মামলার রায় কি দু’-এক দিনের মধ্যেই! উত্তরপ্রদেশ পুলিশ-প্রশাসনের প্রধানদের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ-এর তলব ঘিরে এই সম্ভাবনাই জোরদার হচ্ছে। প্রধান বিচারপতি আজ শুক্রবার দুপুরে নিজের চেম্বারে ডেকে পাঠিয়েছিলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যসচিব রাজেন্দ্র কুমার এবং ডিজি ওম প্রকাশ সিংহকে। শীর্ষ আদালত সূত্রে খবর, অযোধ্যা-সহ গোটা রাজ্যে নিরাপত্তার আগাম কী বন্দোবস্ত করা হয়েছে, তা নিয়ে পুলিশ প্রশাসনের দুই শীর্ষকর্তার সঙ্গে কথা বলেছেন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ।

আগামী ১৭ নভেম্বর দেশের প্রধান বিচারপতির পদ থেকে অবসর নিচ্ছেন রঞ্জন গগৈ। তিনি আগেই জানিয়েছিলেন, অবসর নেওয়ার আগেই তিনি অযোধ্যার বিতর্কিত জমি মামলার রায় দিয়ে যেতে চান। সেই অনুযায়ী তাঁর নেতৃত্বে পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চে প্রতিদিন শুনানি হয়েছে। ৪০ দিন শুনানির পর রায় সংরক্ষিত রেখেছেন বিচারপতি। প্রধান বিচারপতির অবসরের দিন ১৭ নভেম্বর হলেও তাঁর শেষ কাজের দিন ১৫ নভেম্বর। তাই ১৫ নভেম্বরের আগেই রায় হওয়ার কথা।

এই প্রেক্ষিতেই উত্তরপ্রদেশ প্রশাসন ও পুলিশের দুই শীর্ষ কর্তাকে তলব প্রধান বিচারপতির। শীর্ষ আদালত সূত্রে খবর, রায়ের পরে কোনও উত্তেজনাকর পরিস্থিতি তৈরি হলে তার মোকাবিলায় কী কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, সে সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন তিনি। উত্তরপ্রদেশ পুলিশের তরফে অবশ্য বৃহস্পতিবারই জানানো হয়েছিল, চার স্তরীয় নিরাপত্তার বন্দোবস্ত করা হয়েছে অযোধ্যা, সংলগ্ন জেলা এবং গোটা রাজ্য ঘিরে। সেই পরিকল্পনায় কোথাও কোনও খামতি রয়েছে কি না, সে বিষয়েও পুলিশ-প্রশাসনের দুই শীর্ষ কর্তার সঙ্গে আলোচনা করেন প্রধান বিচারপতি।

Advertisement

বৃহস্পতিবার রাতে রাজ্যের পুলিশ-প্রশাসনের কর্তাদের সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠক করেছেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। লখনউয়ে প্রায় তিন ঘণ্টার ওই রিভিউ মিটিংয়ের পর মুখ্যমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন, অযোধ্যা রায় পরবর্তী পরিস্থিতির মোকাবিলায় লখনউ ও অযোধ্যায় দু’টি হেলিকপ্টার প্রস্তুত রাখতে হবে। এ ছাড়া পুলিশ-প্রশাসনের প্রবীণ আধিকারিকদের গ্রামে গিয়ে হিন্দু ও মুসলিম উভয় সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বলার নির্দেশও দিয়েছেন তিনি। প্রয়োজনে স্পর্শকাতর এলাকায় রাতেও ক্যাম্প করে থাকতে হবে, নির্দেশ আদিত্যনাথের। এ ছাড়া সোশ্যাল মিডিয়াতেও কড়া নজর রাখার কথা বলেছেন তিনি।

আরও পড়ুন: গতি বাড়াচ্ছে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’, শুরু বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি, উপকূলে দমকা হাওয়া

আরও পডু়ন: মহিলা পুলিশ আধিকারিককে ঘিরে ধরেছেন আইনজীবীরা, প্রকাশ্যে তিস হাজারির ভিডিয়ো

উত্তরপ্রদেশ পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে শুক্রবারই নিরাপত্তার খুঁটিনাটি সম্পর্কে জানানো হয়েছিল। সোশ্যাল মিডিয়ায় নজরদারি থেকে শুরু করে জনসংযোগ বাড়াতে গ্রামে গ্রামে গিয়ে পুলিশ প্রশাসনের কর্তাদের বৈঠক, দুই সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনা চলছে, সে সব বিষয়ে জানানো হয়েছিল। রাজ্যের পাশাপাশি কেন্দ্রও বৃহস্পতিবারই সব রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলকে আলাদা করে নির্দেশিকা পাঠিয়েছিল। স্পর্শকাতর এলাকাগুলিতে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েনের কথা বলা হয়েছিল ওই নির্দেশিকায়। পাশাপাশি অযোধ্যার জন্য ৪০০০ আধাসেনাও আগে ভাগেই পাঠিয়ে রেখেছে কেন্দ্র।

আরও পডু়ন: অযোধ্যা বিতর্ক সম্পর্কে কতটা জানেন?

আরও পড়ুন

More from My Kolkata
Advertisement