Advertisement
২১ জুন ২০২৪
Mamata Bandyopadhyay

শিঙাড়ার লেচি বেলে, পান তৈরির খুঁটিনাটিতে মগ্ন মমতা, পুজো দিলেন ত্রিপুরেশ্বরী মন্দিরেও

এ রাজ্যের জেলাসফর হোক বা ভিন্‌ রাজ্যে রাজনৈতিক সফর— মমতা যেখানেই গিয়েছেন, সেখানেই দেখা গিয়েছে জনসংযোগের অন্য রকম ধরন। স্থানীয় দোকানে ঢুকে চা-চপ-মোমো বানাতেও দেখা গিয়েছে তাঁকে।

Image of Mamata Banerjee in Agartala

আগরতলায় এক শিঙাড়ার দোকানে ঢুকে ময়দার লেচি বেললেন মমতা। — নিজস্ব চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
আগরতলা শেষ আপডেট: ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ১৮:৫১
Share: Save:

বেলন-চাকিতে ময়দার লেচি বেলছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। তার পর ছুরি দিয়ে তা মাঝখান থেকে দু’ভাগ। ব্যস। এ বার শিঙাড়ার পুর ভরে কড়াইতে চালান করে দিলেই হল! এমন ভঙ্গিই ফুটে উঠল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অভিব্যক্তিতে। এর আগে তাঁকে চা বানাতে দেখা গিয়েছে। ভাজতে দেখা গিয়েছে চপ, ফুলুরি। এমনকি পাহাড়ে গিয়ে বানিয়েছেন মোমোও। তবে সোমবার প্রতিবেশী রাজ্য ত্রিপুরায় গিয়ে মমতা বেললেন শিঙাড়া ভাজার জন্য ময়দার লেচি। পাশের দোকানে গিয়ে সাজলেন পানও।

এ রাজ্যের জেলাসফর হোক বা ভিন্‌ রাজ্যে রাজনৈতিক সফর— মমতা যেখানেই গিয়েছেন, সেখানেই দেখা গিয়েছে জনসংযোগের অন্য রকম ধরন। স্থানীয় দোকানে ঢুকে চা-চপ-মোমো বানাতেও দেখা গিয়েছে তাঁকে। ত্রিপুরা সফরেও তার ব্যত্যয় হল না। সোমবার আগরতলার একটি দোকানে ঢুকে তিনি শিঙাড়ার জন্য লেচিও বেললেন। অন্য একটি দোকানে ঢুকে সাজলেন পানও।

এর আগে ২০২২ সালের মার্চে মমতা গিয়েছিলেন দার্জিলিঙে। সেখানে স্থানীয় একটি দোকানে ঢুকে তৈরি করেছিলেন মোমো। গত বছরের নভেম্বরে পশ্চিম মেদিনীপুরের বেলপাহাড়ির কর্মসূচিতে গিয়ে শিলদার কাছে গাড়ি থেকে আচমকাই নেমে বিক্রি করেছিলেন চপ। এ বারও নিজস্ব সেই ভঙ্গিতেই ত্রিপুরায় গিয়ে জনসংযোগ সারলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। সোমবার আগরতলা বিমানবন্দরে নেমে অবশ্য মমতা জানিয়েছিলেন, ত্রিপুরাকে তিনি আলাদা ভাবে দেখেন না। জনসংযোগের সময়ও তা-ই মেনে চললেন। আগরতলায় আচমকা এক দোকানে ঢুকে শিঙাড়ার জন্য ময়দার লেচি বেললেন। পাশেই ছিল একটি পানের দোকান। সেখানে ঢুকে পান তৈরির খুঁটিনাটির খোঁজ নিলেন। সাজলেন পানও। আর এই পুরো সময়ে তাঁর পিছনে দাঁড়িয়ে ছিলেন তাঁরই দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক তথা সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি ত্রিপুরায় ভোট। রবিবার সেখানে নির্বাচনী ইস্তাহার প্রকাশ করেছে তৃণমূল। তারই এক দিন পর সেখানে গিয়েছেন মমতা। ওই ইস্তাহারে ‘সবুজসাথী’, ‘স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড’-এর প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তৃণমূল। চাকরি হারানো ১০ হাজার ৩২৩ জন শিক্ষককে আর্থিক সহায়তা, বর্ষীয়ান নাগরিকদের জন্য ‘দুয়ারে দু’হাজার টাকা’ পৌঁছে দেওয়ার কথাও বলা হয়েছে। যদিও তৃণমূলকে ‘পরিযায়ী পাখি’ বলে কটাক্ষ করেছেন সেখানকার বিজেপি মুখ্যমন্ত্রী মানিক সাহা। স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি, মানিকের ওই অভিযোগের জবাব দিতেই সোমবার আগরতলার পথে জনসংযোগ সারলেন মমতা। তাঁকে ঘিরে ছিলেন বহু স্থানীয় মানুষ।

সোমবার উদয়পুরে গিয়ে ত্রিপুরেশ্বরী মন্দিরে পুজো দেন মমতা। বিকেলে অভিষেককে সঙ্গে নিয়ে সেখানে গিয়েছিলেন তিনি। মঙ্গলবার আগরতলায় ‘রোড শো’ করতে পারেন মমতা। রবীন্দ্র শতবার্ষিকী ভবনের সামনে থেকে শুরু করে শহর পরিক্রমা করে আবার সেখানেই ফিরে সভা করার কথা তাঁর।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Mamata Bandyopadhyay Singara Tripura Agartala
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE