Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৭ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

Gutkha Man of Kanpur: প্রকাশ্যে এলেন কানপুরের ‘গুটখা ম্যান’! উত্তর দিলেন পাশে বসা তরুণীকে নিয়ে গুজবেরও

বৃহস্পতিবার ভারত-নিউজিল্যান্ডের টেস্ট ম্যাচ চলাকালীন ক্যামেরাম্যান হঠাৎই তাঁর ক্যামেরা প্যান করায় ক্যামেরাবন্দি হয়ে যান ‘গুটখা ম্যান’।

সংবাদ সংস্থা
কানপুর ২৭ নভেম্বর ২০২১ ১০:৪৭
ভাইরাল হওয়া সেই ছবি।

ভাইরাল হওয়া সেই ছবি।

তিনি গুটখা খাননি। মিষ্টি সুপারি চিবোচ্ছিলেন। কানপুরের গ্রিন পার্কে ভারত এবং নিউজিল্যান্ডের প্রথম টেস্টের প্রথম দিনেই ভাইরাল হওয়া ‘গুটখা ম্যান’ প্রকাশ্যে এসে এমনই দাবি করলেন।

আসল নাম শোবিত পাণ্ডে। কানপুরের মহল মাহেশ্বরী এলাকার বাসিন্দা। গ্রিন পার্কের ভিআইপি স্ট্যান্ডে বসে খেলা দেখার সময় ‘গুটখা খাওয়া’র জন্য তিনি রাতারাতি যেন তারকা হয়ে গিয়েছেন। ‘গুটখা ম্যান’ হিসেবে পরিচিতি পেয়েছেন নেটমাধ্যমের সৌজন্যে। কিন্তু সেই খ্যাতিই তাঁর বিড়ম্বনার কারণ হয়ে উঠেছে। শেষমেশ নিজেই প্রকাশ্যে এসে তাঁর ওই ভাইরাল ছবির সত্যতা তুলে ধরার চেষ্টা করলেন শোবিত।

বৃহস্পতিবার ম্যাচ চলাকালীন ক্যামেরাম্যান হঠাৎই তাঁর ক্যামেরা প্যান করায় শোবিত ক্যামেরাবন্দি হয়ে যান। বাঁ হাতে ফোন ধরে কথা বলছিলেন শোবিত। তাঁর মুখের ভিতরে কিছু একটা ছিল যেটা চিবোতে চিবোতে ফোনের ও পারের ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলছিলেন। ব্যস! সেই ছবি ভাইরাল হতে সময় নেয়নি। ঘটনাচক্রে বৃহস্পতিবারই শ্রেয়স আইয়ার টেস্টে তাঁর প্রথম অর্ধশত রান করেন। গোটা স্টেডিয়াম যখন শ্রেয়সের এই কীর্তিতে মেতে হঠাৎই জায়ান্ট স্ক্রিনে ভেসে ওঠে শোবিতের সেই ছবি। মুহূর্তেই শ্রেয়সের ওই কীর্তিকে ফিকে করে দিয়ে গোটা ম্যাচের নজর কেড়ে নেন ‘গুটখা খাওয়া’ শোবিত।

Advertisement

স্টেডিয়ামের ভিতরে জলের বোতল, গুটখা, সিগারেট পুরোপুরি নিষিদ্ধ। ফলে শোবিতের ওই ছবি সামনে আসতেই পুলিশ খোঁজ শুরু করে। তার জন্য নেটমাধ্যম এবং মানুষজনের সাহায্যও চাওয়া হয়। তাঁকে নিয়ে যখন চার দিকে হইচই, পুলিশ যখন খোঁজ চালাচ্ছে, তখনই প্রকাশ্যে এলেন শোবিত। তাঁকে নিয়ে যে ‘গুজব’ রটছে, সেই সত্যটা তুলে ধরতে শুক্রবার সংবাদমাধ্যমের সামনে আসেন তিনি। সংবাদ সংস্থা এনএআই-কে তিনি বলেন, “আমাকে নিয়ে যে চর্চা চলছে তা পুরোপুরি মিথ্যা। গুটখা নয়, আমি মিষ্টি সুপারি খাচ্ছিলাম। সেই সময় আমারই এক বন্ধু ফোন করে জানতে চাইছিল কত নম্বর গেটে বসে আছি। সে-ও খেলা দেখছিল অন্য স্ট্যান্ডে। মাত্র ১০ সেকেন্ড কথা বলেছিলাম। কিন্তু এ ভাবে যে ভাইরাল হয়ে যাব ভাবতে পারিনি। আমাকে নিয়ে যে চর্চা চলছে তাতে অত্যন্ত বিরক্ত।”

শোবিত আরও জানিয়েছেন, তাঁর পাশে বসে থাকা তরুণী তাঁরই বোন। কিন্তু নেটমাধ্যমে তাঁকে নিয়েও যে ভাবে কুকথা বলা হচ্ছে তা খুবই খারাপ। এটা কখনওই মেনে নেওয়া যায় না বলেই অভিযোগ শোবিতের। তাঁর কথায়, “আমি কোনও ভুল করিনি। আমি এ নিয়ে ভীতও নই। তবে অনেকে যে ধরনের বাজে মন্তব্য করছেন বোনকে নিয়ে তাতে খুবই বিরক্ত আমি। ছবি ভাইরাল হওয়ার পর থেকে বহু সংবাদমাধ্যম থেকে ফোন আসছে। বহু লোক আমাকে ফোন করছেন। বিষয়টি বিরক্ত লাগছে।”

প্রসঙ্গত, শুক্রবারও খেলা দেখতে এসেছিলেন শোবিত।

আরও পড়ুন

Advertisement