সদ্য আলো ফুটেছে শহরে। বাড়ি থেকে বেরিয়ে পড়ছেন প্রাতর্ভ্রমণকারীরা। তাঁদেরই একজনের চোখে পড়ে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকটা। সংবামাধ্যমকে তিনি জানান, ‘‘ট্রাকের ভিতর স্তুপাকৃত হয়েছিল মোট ৩৯ মৃতদেহ। ৩৮ মৃতদেহ পুর্নবয়্স্ক মানুষ আর একটি শিশুর মৃতদেহ।’’আপাতত এই মৃতদেহ বোঝাই গাড়িটি নিয়েই তুলকালাম লন্ডনে। পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, বড় কোনও দেহ পাচার চক্র এই কীর্তির সঙ্গে জড়িত। তাঁদের দাবি,মৃতদেহগুলি বুলগেরিয়া থেকে এসেছিল।

পূ্র্ব লন্ডনের জমজমাট গ্রে স্ট্রিটের ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কের এই ঘটনায় শোরগোল পড়ে গিয়েছে লন্ডন পুলিশের অন্দরেও। পুলিশ সুপারিন্টেন্ডেন্ট অ্যান্ড্রু মেরিনার সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘‘একসঙ্গে এতগুলি মৃত্যুর ঘটনা অপ্রত্যাশিত। আমরা তদন্ত শুরু করেছি। এত মৃত মানুষের পরিচয় অনুসন্ধান খুব সহজ নয়, ফলে সময় লাগবে।’’

এক অ্যাম্বুলেন্স চালকের থেকে তথ্য পেয়ে লন্ডন পুলিশ বুধবার ঘটনাস্থলে পৌঁছয়। তদন্তকারী অফিসার দাবি, ওয়েলসের উত্তর-পশ্চিম প্রান্ত দিয়ে এই মৃতদেহ বোঝাই গাড়িটি লন্ডনে ঢোকে। তার আগে বুলগেরিয়া থেকে নদীপথে আনা হয়েছিল এই মৃতদেহগুলি।

আরও পড়ুন: নাট্যজগতে ফের মি-টু, অভিনয় শেখানোর নামে যৌন নিগ্রহের অভিযোগ পরিচালকের বিরুদ্ধে
আরও পড়ুন:পুনরুজ্জীবনের দাওয়াই সেই সংযুক্তিকরণ, মিশে যাচ্ছে বিএসএনএল-এমটিএনএল

 

এখনও পর্যন্ত এই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দুই ট্রাক চালককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুলিশের সন্দেহ তাঁরা ওই ট্রাক চালিয়ে এনে এখানে রেখেছিল, কিছুক্ষণের মধ্যেই তাদের ফের রওনা দেওয়ার পরিকল্পনা ছিল।