• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

একই সঙ্গে কাজ, গর্ভবতীও একই সঙ্গে; অবাক করা ঘটনা ৯ নার্সের

US Nurse
এই ছবি পোস্ট করা হয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফেই। ছবি: ফেসবুক

দীর্ঘদিন এক জায়গায় একসঙ্গে কাজ করতে করতে সহকর্মীরাই কখন যেন সুখ-দুঃখের সঙ্গী হয়ে যায়। কিন্তু সেই সব কিছুর ঊর্ধ্বে উঠে একই হাসপাতালের ন’জন মহিলাকর্মী একসঙ্গে গর্ভবতী হয়ে পড়লেন! অবাক করা এই ঘটনাটি ঘটেছে আমেরিকার পোর্টল্যান্ডের একটি হাসপাতালে।

পোর্টল্যান্ডের মেইন মেডিকেল সেন্টারে কর্মরত সেই ন’জন নার্স একইসঙ্গে গর্ভবতী হয়ে পড়ার পর আনন্দ এবং উদ্বেগ, দুই-ই ছড়িয়েছে কর্তৃপক্ষের মনে। এই ন’জন নার্স শুধু এই হাসপাতালেই নয়, কাজ করেন একই সঙ্গে হাসপাতালের লেবার অ্যান্ড ডেলিভারি ইউনিটেই।

গত ২৫ মার্চ, সোমবার মেইন মেডিকেল সেন্টারের তরফেই আনুষ্ঠানিক ভাবে এই তথ্য জানানো হয়। হবু মায়েদের শুভেচ্ছা এবং অভিনন্দনও জানিয়েছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। সেই সঙ্গেই হবু মায়েদের একটি ছবিও প্রকাশ করা হয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফে। যদিও সেই ছবিতে  ন’জনের মধ্যে আটজন হবু মা উপস্থিত ছিলেন। তবে আশঙ্কা ছড়িয়েছে এই ভেবে যে, একসঙ্গে একই বিভাগের  ন’জন কর্মী অনুপস্থিত থাকলে লোকবলের সঙ্কট না তৈরি হয়। তবে এই বিষয়টি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সমাধান করবার চেষ্টা করছেন বলে জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন: মাসুদ আজহারকে কালো তালিকাভুক্ত করতে রাষ্ট্রপুঞ্জে নয়া পদক্ষেপ আমেরিকার

চলতি বছরেরই এপ্রিল থেকে জুলাইয়ের মধ্যে তাঁরা মা হতে চলেছেন বলে আশা করা হচ্ছে। গর্ভবতী এই নার্সদের একজন এরিন গ্রেনিয়ার বলেছেন, “একের পর এক সহকর্মী এসে যখন জানাচ্ছিলেন যে তাঁরাও সন্তানসম্ভবা, তখন নিজের আনন্দটাও যেন দ্বিগুণ হয়ে যাচ্ছিল।” তিনি এও জানান, তাঁরা সকলে একন খুব আনন্দে রয়েছেন। তাঁরা প্রত্যেকে প্রত্যেকের পাশে আছেন বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুন: ভোট না দিলেই জরিমানার চিঠি

আমান্ডা স্পেয়ার নামে আরেক নার্স বলেছেন, “কাজ করতে এসে দেখছি নিজের সঙ্গে বাকি সহকর্মীদেরও পেটটা একটু উঁচু মতো হয়ে আছে। আর আমরা প্রত্যেকেই একই রকম পরিস্থিতির ভিতর দিয়ে যাচ্ছি এবং একে অন্যের সঙ্গে সেই অভিজ্ঞতা ভাগ করে নিচ্ছি। সত্যিই ভীষণই ভাললাগার এই অনুভূতি।”

সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ছবি ছড়িয়ে পড়বার পরে, নেটিজেনদের শুভেচ্ছায় ভেসে গিয়েছেন ওই হবু মায়েরা।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন