বিস্ফোরণের পর ২৪ ঘণ্টা কেটে গেলেও ব্রাসেলস বিমানবন্দর বন্ধই রয়েছে। স্থগিত রাখা হয়েছে বিমান পরিষেবা। ফলে আটকে পড়া বিভিন্ন দেশের যাত্রীদের ঠিকানা এখন বিভিন্ন হোটেলই। আটকে পড়া যাত্রীদের মধ্যে রয়েছেন গায়ক অভিজিতের স্ত্রী সুমতি ও ছেলে জয় ভট্টাচার্য। বুধবার জয় জানিয়েছেন, তাঁরা অ্যান্টওয়ার্প শহরের একটি হোটেলে রয়েছেন। বিস্ফোরণের পর সব ব্যাগপত্র বিমানবন্দরে ফেলে এসেছেন তাঁরা। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হোটেল থেকে বেরিয়ে ক্রেডিট কার্ড দিয়ে কিছু জামাকাপড় কিনেছেন।

ফিল্ম নিয়ে কোর্স করতে মুম্বই থেকে ব্রাসেলস হয়ে নিউ ইয়র্ক যাওয়ার কথা ছিল জয়ের। কিন্তু জঙ্গিহানার ফলে সেই যাত্রা মাঝপথেই থমকে রয়েছে। আগামী ২৭ মার্চ নিউ ইয়র্কে ইন্টারভিউ রয়েছে তাঁর। জয় কী ভাবে পৌঁছবেন, তা নিয়ে চিন্তায় রয়েছেন তাঁরা বাবা অভিজিৎ। তিনি বলেন, ‘‘আমি বুধবারই দুবাই হয়ে নিউ ইয়র্ক যাচ্ছি। সেখানে অবশ্য ছেলের সঙ্গে দেখা হবে কি না জানি না।’’ তবে জয় আশাবাদী বৃহস্পতিবার থেকেই বিমান চলাচল শুরু হবে। ফলে তিনিও মাকে নিয়ে নিউ ইয়র্কে উড়ে যেতে পারবেন।

ব্রাসেলস বিমানবন্দরে বিস্ফোরণে আহত হয়েছিলেন জেট এয়ারওয়েজের দুই কর্মীও। এ দিন জেট এয়ারওয়েজ সূত্রে জানানো হয়েছে, তাঁরা ভাল আছেন। মুম্বই, দিল্লি, নিউ ইয়র্ক এবং টরন্টো থেকে ব্রাসেলসে যাতায়াতের বিমান রয়েছে। এ দিন সেই সব বিমান বাতিল করা হয়। বৃহস্পতিবার বিমান চলবে কি না তা নিয়েও নিশ্চিত কিছু জানানো হয়নি।