ছবি ও কবিতার দেশে ছুরি নিয়ে হামলার আরও একটি ঘটনা। প্রাণ গেল চার জন পুলিশ অফিসারের। আহত এক। গুলিতে নিহত আততায়ীও। প্যারিসে পুলিশের সদর দফতর চত্বরে ঘটেছে এই ঘটনা। প্রাথমিক ভাবে জানা যাচ্ছে, হামলাকারী ব্যক্তি পুলিশের ওই দফতরেরই প্রশাসনিক বিভাগের কর্মী। স্মরণকালে এত বড় হামলা হয়নি পুলিশের এই দফতরে। 

প্যারিসের কেন্দ্রে প্রাকৃতিক দ্বীপ ‘ইল দে লা সিতে’-তে রয়েছে পুলিশের এই সদর দফতর। তার ঠিক উল্টো দিকেই ঐতিহাসিক নোত্র দাম গির্জা। তাই পর্যটকদের ভিড়ও লেগে থাকে সারা ক্ষণ। আজ দুপুরে ওই হামলার পরেই বন্ধ করে দেওয়া হয় কাছের মেট্রো স্টেশনটি। এলাকা জুড়ে তখন পুলিশের তৎপরতা, অ্যাম্বুল্যান্সের সাইরেন। ঘটনাস্থলে চলে আসেন প্রধানমন্ত্রী এদুয়ার ফিলিপ, অভ্যন্তরীণ মন্ত্রী ক্রিস্তোফ কাস্তানার। 

স্থানীয় সময় দুপুর ১টা নাগাদ পুলিশের দফতরে মধ্যাহ্নভোজের বিরতি চলার সময়ে হামলাটি হয়। প্রাথমিক ধাক্কা সামলে পুলিশই গুলি করে মারে আততায়ীকে। কোনও জঙ্গি গোষ্ঠীর যোগ মেলেনি। নামও প্রকাশ করা হয়নি হামলাকারীর। গোয়েন্দাদের সন্দেহ, অফিস সংক্রান্ত কোনও বিবাদ বা বিরোধের জেরেই এমন ঘটনা ঘটিয়েছে ওই কর্মী। এক প্রত্যক্ষদর্শীর কথায়, ‘‘প্রথমে একটা গুলির শব্দ শুনলাম। তার পরে দেখি, সবাই দৌড়চ্ছে। কয়েক জন পুলিশ অফিসার কাঁদছেন।’’