জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহার এবং রাজ্য ভাগ নিয়ে পাকিস্তানের অভিযোগকে তেমন আমল দেয়নি রাষ্ট্রপুঞ্জ। তা সত্ত্বেও আন্তর্জাতিক সমর্থন জোগাড়ে চেষ্টার ত্রুটি রাখছে না ইসলামাবাদ। কিন্তু বিষয়টি যে সহজ নয়, তা আজ প্রকাশ্যে স্বীকার করলেন পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি। কাশ্মীর নিয়ে পাকিস্তানবাসীর উদ্দেশে তাঁর বার্তা, ‘মূর্খের স্বর্গে বাস করা উচিত নয়।’

পাক-অধিকৃত কাশ্মীরের মুজফ্ফরাবাদে কাল সাংবাদিক বৈঠকে কুরেশি জানান, রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যেদের সমর্থন আদায়ে ‘নতুন লড়াই’ শুরু করতে হবে। তাঁর কথায়, ‘‘রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদে আমাদের জন্য মালা হাতে কেউ দাঁড়িয়ে নেই। নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্যদের মধ্যে যে কেউ যখন-তখন বেঁকে বসতে পারে। তাই মূর্খের স্বর্গে বাস করা উচিত নয়।’’

ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বিলোপের পরেই রাষ্ট্রপুঞ্জের দ্বারস্থ হয় ইসলামাবাদ। নয়াদিল্লি অবশ্য জানিয়েছিল, এই সিদ্ধান্তে ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়।

কুরেশি আজ জানিয়েছেন, কাশ্মীর নিয়ে কোনও ইসলামিক রাষ্ট্রকেও সম্ভবত পাশে পাবে না ইসলামাবাদ। তাঁর কথায়, ‘‘বিশ্বে বিভিন্ন লোকের বিভিন্ন স্বার্থ রয়েছে। ইসলামিক রাষ্ট্রগুলি ভারতে বিনিয়োগ করেছে। সম্ভবত অর্থনৈতিক কারণেই তারা পাকিস্তানের পাশে দাঁড়াবে না।’’