• নিজস্ব সংবাদদাতা 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

‘ইমরান মরিয়া’, খোঁচা ভারতের

Raveesh Kumar
বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র রবীশ কুমার।

Advertisement

ডাভোস সম্মেলনে বক্তৃতায় ভারত সংক্রান্ত কিছু মন্তব্য করেছিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। আজ নয়াদিল্লিতে বসে তার জবাব দিলেন বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র রবীশ কুমার। তাঁর বক্তব্যের নির্যাস, ইমরান মরিয়া হয়ে উঠেছেন। পাকিস্তানের বরং উচিত সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে প্রকৃত পদক্ষেপ করা।

ডাভোসে এক দিকে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে দেখা করে কাশ্মীর নিয়ে আলোচনা করেছেন ইমরান। পাশাপাশি তাঁর বক্তৃতায় দাবি করেছেন, ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক থাকলে পাকিস্তানের বাণিজ্য সম্ভাবনা এক ধাক্কায় অনেকগুণ বেড়ে যাবে। এখানেই না থেমে তাঁর দাবি, ভারত ক্রমশই সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে। রাষ্ট্রপুঞ্জের অবিলম্বে হস্তক্ষেপ করা উচিত। কারণ ভারতে নির্বিচারে মুসলিম সম্প্রদায়কে নিশানা করা হচ্ছে। ট্রাম্পও ফের জানিয়েছেন, কাশ্মীর প্রসঙ্গে দু’পক্ষকে ‘সাহায্য’ করতে আমেরিকা তৈরি। ২৫ জানুয়ারি থেকে কাশ্মীর নিয়ে স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক মঞ্চে ১০ দিন ব্যাপী প্রচার চালানোর কথা ঘোষণা করেছেন পাক বিদেশমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি।  

আজ বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র রবীশ কুমার বলেন, ‘‘ইমরানের বক্তব্যে নতুন কিছু নেই। বোঝা যাচ্ছে উনি মরিয়া হয়ে উঠেছেন। বিশ্ব পাকিস্তানের দ্বিচারিতার কথা বুঝতে পেরেছে। ওরা এক দিকে নিজেদের সন্ত্রাসের শিকার হিসেবে তুলে ধরে। অন্য দিকে এমন মৌলবাদীদের মদত দেয় যারা ভারত ও অন্য দেশে সন্ত্রাস ছড়াচ্ছে।’’

রবীশের মতে, পাকিস্তান কাশ্মীর নিয়ে যে ‘ভয়ঙ্কর চিত্র’ তুলে ধরতে চাইছে তা বিশ্ব মানতে রাজি নয়। তাঁর বক্তব্য, ‘‘পাকিস্তানের উচিত নিজেদের সমস্যা মেটানোর চেষ্টা করা। আর বিশ্ব আর্থিক ফোরাম কাশ্মীর সমস্যা আলোচনার মঞ্চ নয়।’’

সেইসঙ্গে নাম না করে আজ প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ‘সাহায্যে’র প্রস্তাব প্রসঙ্গে ফের দিল্লির অবস্থান স্পষ্ট করেছেন রবীশ। তিনি বলেন, ‘‘কাশ্মীর প্রসঙ্গে আমাদের অবস্থান একেবারে স্পষ্ট। এটা দ্বিপাক্ষিক বিষয়। তৃতীয় পক্ষের হস্তক্ষেপ মেনে নেওয়ার প্রশ্নই নেই।’’

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন