• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

দু’সপ্তাহে সংক্রমিত ৯৭ হাজার নাবালক

Coronavirus
ছবি এপি।

তখনও অতিমারি আসেনি। দক্ষিণ ইংল্যান্ডের হার্টফোর্ডশায়ারের বাসিন্দা ১৪ বছর বয়সি ইন্ডিয়ানা ইভান্স সপ্তাহে ১৬ ঘণ্টা নাচের তালিম নিচ্ছে। সামনে বড় অনুষ্ঠান। পরের কয়েকটা মাসে অনেক কিছু বদলে গিয়েছে। মার্চের গোড়ায় সর্দি-কাশি হয় ইন্ডিয়ানার। কিন্তু করোনার আর কোনও উপসর্গ ছিল না। তবু ১৪ দিন কোয়রান্টিনে রাখা হয় তাকে। হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়নি। কিন্তু সুস্থও হয়নি সে। যে কিশোরী দক্ষ নৃত্যশিল্পী, সে-ই এখন বাজারে গেলে হাঁফিয়ে ওঠে। শ্বাস নিতে কষ্ট হয়।

বিশেষজ্ঞেরা জানাচ্ছেন, ইন্ডিয়ানার মতো এমন অনেক বাচ্চার ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে, কোভিডের পরীক্ষাই হয়তো হয়নি। কারণ কোনও বাড়াবাড়ি হয়নি। কিন্তু ভাইরাল-পরবর্তী উপসর্গ সবই রয়েছে। যেমন, ক্লান্তি, বুকে ব্যথা, শ্বাসকষ্ট, ডায়েরিয়া ইত্যাদি। চিকিৎসকদের কথায়, বয়স্কদের নিয়ে মানুষ সচেতন হয়েছেন। তাঁদের উপর করোনার দীর্ঘকালীন প্রভাব নিয়ে চিন্তাভাবনা চলছে। কিন্তু ছোটদের ক্ষেত্রে করোনার দীর্ঘমেয়াদি প্রভাব কী হতে পারে, তা নিয়ে কোনও ভাবনাই নেই। 

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেই আসছেন, বাচ্চাদের ভয় নেই। সম্প্রতি তিনি এ সংক্রান্ত একটি পোস্ট করেছিলেন ফেসবুকে। তারা পোস্টটি মুছে দেয়। এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ‘‘বাচ্চারা প্রায় ইমিউন।’’ সে নিয়ে বিতর্ক বাধে। স্কুল-কলেজ খুলে দিতে চান প্রেসিডেন্ট। অথচ তাঁর করোনা টাস্ক ফোর্সের প্রাক্তন প্রধান তথা আমেরিকার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব অ্যালার্জি অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজ়িজ়েস-এর ডিরেক্টর অ্যান্টনি ফাউচি জানান, বয়স্কদের তুলনায় বাচ্চাদের উপসর্গ কম হতে পারে, কিন্তু ঝুঁকি থাকছে।

আমেরিকা, ব্রিটেন, ইটালি ও অন্যান্য দেশে অল্প সংখ্যক শিশু-কিশোরকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে। তাদের ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে, ‘মাল্টিসিস্টেম ইনফ্লেমেটরি সিন্ড্রোম’। কিন্তু ‘অল্প সংখ্যক’ কথাটা সম্পূর্ণই তুলনামূলক। আমেরিকায় শুধু জুলাইয়ের শেষ দু’সপ্তাহেই ৯৭ হাজার নাবালকের করোনা পজ়িটিভ ধরা পড়েছে।  ‘আমেরিকান অ্যাকাডেমি অব পিডিয়াট্রিকস অ্যান্ড দ্য চিল্ড্রেন’স হসপিটাল অ্যাসোসিয়েশন’-এ প্রকাশিত হয়েছে সেই রিপোর্ট। তাতে দাবি করা হয়েছে, ছোটদের সংক্রমণের আশঙ্কা ৪০% বেড়েছে আমেরিকায়। এর মধ্যে ১৪ থেকে ২৪ বছর বয়সিদের আশঙ্কা বেশি।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন