কয়েক দিন আগেই চরম বিদ্যুৎ সঙ্কটে পড়েছিল তাঁর দেশ। তা নিয়ে আমেরিকার সঙ্গে দ্বন্দ্বও পৌঁছেছে চরমে। এ বার ভেনেজ়ুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর উপরে আরও চাপ বাড়াল মার্কিন প্রশাসন। ব্রাজ়িলের প্রেসিডেন্ট খা ইর বোলসোনারো-কে পাশে নিয়ে ভেনেজ়ুয়েলার উপরে আরও কড়া নিষেধাজ্ঞা জারির হুঁশিয়ারি দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

মঙ্গলবার এক যৌথ বিবৃতিতে ট্রাম্প জানিয়েছেন, ভেনেজ়ুয়েলার রাষ্ট্রায়ত্ত খনি সংস্থাকেও নিষেধাজ্ঞার আওতায় আনতে চলেছেন তাঁরা। বিরোধী দলনেতা হুয়ান গুয়াইদোর পাশে দাঁড়ানোর বার্তা দিয়ে মাদুরোকে আরও কোণঠাসা করতেই আমেরিকার এমন পদক্ষেপ বলে মনে করছেন অনেকে।

মাত্র দু’সপ্তাহ আগেই ভয়াবহ বিদ্যুৎ বিপর্যয়ের মুখে পড়েছিল গোটা ভেনেজ়ুয়েলা। বিপর্যয়ের দায় তখন মার্কিন প্রশাসনের ঘাড়েই চাপিয়েছিলেন মাদুরো। হুয়ানের বিরুদ্ধেও তোপ দেগেছিলেন তিনি। গোটা বিষয়টিকে প্রাযুক্তিক নাশকতা বলে দাবি করেছিলেন মাদুরো। কিন্তু আমেরিকা-সহ প্রায় ৫০টি দেশ হুয়ানকেই ভেনেজ়ুয়েলার নেতা বলে কার্যত মেনে নিয়েছে।

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

মাদুরোকে কোণঠাসা করতে তাই ওই খনি সংস্থাকে এ বার কালো তালিকাভুক্ত করেছেন ট্রাম্প। এর ফলে কোনও মার্কিন নাগরিক আর ওই সংস্থার সঙ্গে আর্থিক লেনদেন করতে পারবে না। এর আগে ভারত-সহ বিভিন্ন দেশকে ভেনেজ়ুয়েলা থেকে তেল কেনা বন্ধ করতে অনুরোধ করেছে আমেরিকা। ভারত তাতে সায়ও দিয়েছে।