অপটিক্যাল ইলিউশন। দৃষ্টিভ্রম। আর তাতেই দ্বিধাবিভক্ত সোশ্যাল মিডিয়া। কেউ বলছেন দরজা, আবার অন্য কেউ বলছেন ‘না না, তা নয়’।

অগস্ট মাসের ২৫ তারিখে বেকি নামের এক টুইটারেত্তি (টুইটার ব্যবহারকারী)  একটি ছবি পোস্ট করেন, সঙ্গে সঙ্গেই ভাইরাল হয়ে যায় সেই পোস্ট। সব্বাই বোঝার চেষ্টা করেন, বেকি যে ছবিটি পোস্ট করেন সেটি আসলে কী। নীল রঙের দরজা আর পাশে সবুজ রঙের বর্ডার দেওয়া। আর পাশেই দেওয়াল। দেওয়ালের রঙ হলদেটে সাদা। স্পষ্ট মনে হচ্ছে দরজা, এমনটা বলেন অনেকেই

ছবিটা টুইটারে পোস্ট করার সঙ্গে সঙ্গেই একেক জন মন্তব্য করতে শুরু করেন। ৩২,৬০০ লাইক পড়ে বেকির পোস্টে। আর রিটুইট করা হয় ১৮,৬০০ বার। অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়াতেও এটি পোস্ট করা হয়। 

আরও পড়ুন: বিলাসবহুল হোটেলকেও হার মানাবে এই বাসগুলি

এক জন টুইটার ব্যবহারকারী লেখেন, ‘‘আমার মাথা কাজ করছে না। এটা কী? আমার মনে হচ্ছে এটা দরজা। কিন্তু পুরোপুরি দরজাও তো নয়।’’

আরেকজন নিজের বাড়ির দরজার ছবি দিয়ে বলেন, ‘‘হ্যাঁ এটা দরজাই।’’ আরেকজন লেখেন, ‘‘এ বার তো টুইটারে বিশ্বযুদ্ধ লেগে যাবে।’’

 

এর পরই আসে আসল চমক। ঠিক দু’দিন পরই বেকি একই ছবি পোস্ট করেন, আর তাতেই বোঝা যায়, আসল ব্যাপারটা কী। আসলে এটা একটা সমুদ্রতটের ছবি। নীল আকাশ। সবুজ জল আর বাকিটা স্থলভাগ, বালির অংশ।

দু’দিন পর বেকি আসল ছবি পোস্ট করেন। আর সেটি এই সমুদ্রতট।

বেকির এই পোস্টের পরই উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়েন অনেক টুইটারেত্তি সবচেয়ে বেশি খুশি হন কাই নামের এক তরুণী, কারণ তিনিই বারবার বলেছিলেন, এটা কিন্তু দরজা নয়। সমুদ্রতটের ছবি।

আরও পড়ুন: ইরানের সঙ্গে ছয় দেশের চুক্তি নিয়ে জল্পনা​

তাহলে অপটিক্যাল ইলিউশন এভাবেও সমুদ্রকে দরজা বানিয়ে দিতে পারে, বা হয়তো উল্টোটাও!