পাকিস্তানেগ্বাদরে পাঁচতারা হোটেলে বন্দুকবাজ হামলা। স্থানীয় পুলিশের সঙ্গে হামলাকারীদের গুলি বিনিময় চলছে। তবে এখনও পর্যন্ত হতাহতের খবর মেলেনি। হামলার সময় ওই হোটেলে কোনও বিদেশি নাগরিক ছিলেন না বলে নিশ্চিত করেছে স্থানীয় প্রশাসন।

শনিবার স্থানীয় সময় বিকাল ৪টে বেজে ৫০ মিনিটে, গ্বাদরের বিলাসবহুল পার্ল কন্টিনেন্টাল হোটেলে ঘটনাটি ঘটে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় স্টেশন হাউস অফিসার (এসএইচও) আসলাম বাঙ্গুলজাই। পাক সংবাদমাধ্যমে তিনি জানান, ‘‘বিকাল ৪টে ৫০ মিনিটে আমাদের কাছে ফোন আসে। অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে তিন-চারজন বন্দুকবাজ সেখানে ঢুকে পড়েছে বলে জানতে পারি। খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌঁছয় এটিএফ (অ্যান্টি টেররিজম ফোর্স) ও সেনাবাহিনী। পরিস্থিতি সামাল দিচ্ছে তারা।’’

দু’পক্ষের মধ্যে গুলি বিনিময় জারি থাকলেও, হতাহতের কোনও খবর পাননি বলে জানান আসলাম বাঙ্গুলজাই। সেই সঙ্গে হামলার সময় হোটেলে কোনও বিদেশি নাগরিক ছিলেন না বলেও নিশ্চিত করেন।

আরও পড়ুন: প্রাইভেট জেট পাঠিয়ে টিউমার আক্রান্ত শিশুকে দিল্লি উড়িয়ে আনলেন প্রিয়ঙ্কা​

তবে বালুচিস্তান প্রদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মীর জিয়া লাঙ্গোভ জানান, ‘‘বন্দুকবাজদের গুলিতে হোটেলের মধ্যে কয়েকজন আহত হয়েছে বলে জানতে পেরেছি।’’ তবে হোটেলের মধ্যে কতজন কর্মী আটকে রয়েছেন, তা নির্দিষ্ট করে জানাতে পারেননি তিনি।

কোথা থেকে, কীভাবে বন্দুকবাজরা হোটেলে ঢুকে পড়ল, সে ব্যাপারে পরিষ্কার ভাবে কিছু জানা না গেলেও, নৌকোয় চেপে গ্বাদর বন্দর হয়ে জঙ্গিরা হোটেলে ঢুকে থাকতে পারে বলে জানান স্থানীয় ইনস্পেক্টর জেনারেল অব পুলিশ মহসিন হাসান বাট।ইতিমধ্যেই এই হামলার তীব্র নিন্দা করেছেন বালুচিস্তানের মুখ্যমন্ত্রী জাম কামাল খান আলিয়ানি। রীতিমতো পরিকল্পনা করেই হামলা চালানো হয়েছে বলে দাবি করেছেন তিনি।

আরও পড়ুন: বসিরহাটের মানুষ দাঙ্গা করেননি, দুর্বৃত্ত ঢুকিয়ে করানো হয়েছে: মমতা​

বালুচিস্তানের উপর দিয়ে এই গ্বাদর বন্দর পর্যন্তই অর্থনৈতিক করিডর গড়ছে চিন। তা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই আপত্তি তুলে আসছেন বালুচিস্তানের স্থানীয়দের একাংশ। সেই গ্বাদরেই এই নাশকতার ঘটনায় উদ্বেগ বাড়ল ইসলামাবাদের।