এইচ-ওয়ানবি ভিসা নিয়ে আমেরিকায় চাকরি করছেন যে ভারতীয়রা, একটি মার্কিন আদালতের রায়ে তাঁদের সাময়িক স্বস্তি মিলল। যাঁদের স্বামী বা স্ত্রী এইচ-ওয়ানবি ভিসা নিয়ে আমেরিকায় চাকরি করছেন, ওই রায়ের ফলে, যথাক্রমে তাঁদের স্ত্রী বা স্বামীরাও আপাতত চাকরি করতে পারবেন মার্কিন মুলুকে। তাঁদের চাকরি ছাড়তে হবে না। দেশেও ফিরে আসতে হবে না।

পূর্বতন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সময় এই নিয়মই চালু ছিল আমেরিকায়। কিন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর থেকেই এইচ-ওয়ানবি ভিসা আইন বদলাতে কোমর বেঁধে নেমে পড়েন। ঘোষণা করেন ‘আমেরিকা ফার্স্ট’ নীতি। মার্কিন ও ভারত-সহ অন্য দেশের তথ্যপ্রযুক্তি ও অন্যান্য সংস্থায় আমেরিকার নাগরিকদের প্রতিনিধিত্ব বাড়াতে মরিয়া প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এইচ-ওয়ানবি ভিসার সুবিধা কাটছাঁটে ব্যস্ত হয়ে ওঠেন। এইচ-ওয়ানবি ভিসা হাতে থাকা অন্য দেশের নাগরিকদের নিয়োগ করতে পারে মার্কিন সংস্থা তো বটেই, আমেরিকায় বিভিন্ন বহুজাতিক সংস্থার শাখা অফিস বা আঞ্চলিক কেন্দ্রগুলিও।

এইচ-ওয়ানবি ভিসা নিয়ে এই মুহূর্তে আমেরিকায় থাকা বিভিন্ন দেশের নাগরিকদের মধ্যে ভারতীয়দের সংখ্যাই সবচেয়ে বেশি। ওই ভিসার দৌলতে সবচেয়ে বেশি উপকৃত হচ্ছিলেন মহিলারা। ফলে, ট্রাম্প প্রশাসনের পদক্ষেপে সবচেয়ে বেশি বিপদে পড়ে গিয়েছিলেন মার্কিন মুলুকে এইচ-ওয়ানবি ভিসা নিয়ে চাকরি করা ভারতীয়রা।

আরও পড়ুন- ভাল পারফরম্যান্সের পুরস্কার! কর্মীদের পা ধুইয়ে দিলেন অফিসের বস​

আরও পড়ুন- জেল-মুক্ত লুলাকে স্বাগত জানাতে ভিড়​

আমেরিকার ডিস্ট্রিক্ট অফ কলাম্বিয়া সার্কিটের ‘কোর্ট অফ অ্যাপিলসে’র তিন বিচারকের একটি বেঞ্চ শুক্রবার জানায়, এইচ-ওয়ানবি ভিসা আইনের রদবদল সাময়িক ভাবে স্থগিত রইল।