রাষ্ট্রপুঞ্জ তাকে নিষিদ্ধ করেছে। মুম্বই হামলার পর তার মাথার দাম ঘোষণা করেছে মার্কিন সরকারও। কিন্তু কোনও নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে তার সংযোগ নেই বলে  শুক্রবার লাহৌর আদালতে দাবি করল মুম্বই হামলার মূল চক্রী তথা জামাত-উদ-দাওয়া প্রধান হাফিজ সইদ। আদালতে সে জানিয়েছে, তার বিরুদ্ধে ওঠা যাবতীয় অভিযোগ ভুয়ো। কোনও নিষিদ্ধ সংগঠনের সঙ্গে তার সংযোগ নেই।

মোটা টাকার সহায়তা চেয়ে আন্তর্জাতিক অর্থ ভাণ্ডার (আইএমএফ)-এর দ্বারস্থ হয়েছে পাকিস্তান, যাতে দেশের অর্থব্যবস্থাকে দাঁড় করাতে পারে। চলতি সপ্তাহে সেই নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে দুই দেশের মধ্যে।

কিন্তু সন্ত্রাসে মদত দেওয়ার অভিযোগে এমনিতেই আন্তর্জাতিক মহলে দুর্নাম রয়েছে পাকিস্তানের। তাই গত সপ্তাহে আচমকাই সন্ত্রাস দমনে শশ্যব্যস্ত হয়ে ওঠে পাক সরকার। হাফিজ সইদ ও তার ১২ সহযোগীর বিরুদ্ধে একাধিক মামলা দায়ের করে সে দেশের পঞ্জাব প্রদেশের সন্ত্রাস দমন বিভাগ (সিটিডি)। তাতে বলা হয়, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের আড়ালে নাশকতামূলক কাজকর্মে জড়িত হাফিজ। জঙ্গিদের আর্থিক মদত জোগায় তার সংস্থা।

আরও পড়ুন: জঙ্গিদের জন্য বাংলা ভাষায় আল কায়েদার ‘আচরণবিধি’!​

হাফিজ সইদ, তার আত্মীয় আব্দুর রহমান, সহযোগী আমির হামজা, এম ইয়াহা আজিজ-সহ আরও বেশ কয়েক জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে সিটিডি। এর পাশাপাশি লাহৌর, গুজরানওয়ালা এবং মুলতানের দাওয়াতুল ইরশাদ সংস্থা, মোয়াজ বিন জবল সংস্থা, আল আনফাল সংস্থা, আল মদিনা ফাউন্ডেশন ট্রাস্ট এবং আলহামদ সংস্থার বিরুদ্ধেও মামলা দায়ের করা হয়।

আরও পড়ুন: ভর দুপুরে এনকাউন্টার, পুলিশের সঙ্গে গুলির লড়াইয়ে জগদ্দলে খতম কুখ্যাত দুষ্কৃতী​

সিটিভি-র সেই সিদ্ধান্তকেই এ দিন আদালতে চ্যালেঞ্জ জানায় হাফিজ সইদ এবং বাকি অভিযুক্তরা। তাদের বিরুদ্ধে ওঠা যাবতীয় অভিযোগ ভুয়ো বলে দাবি করে তারা। লস্কর-ই-তৈবা, আলকায়দা বা কোনও নিষিদ্ধ সংগঠনের সঙ্গে তার কোনও রকম সংযোগ নেই বলে জানায় হাফিজ।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।