প্রথমে মালয়েশিয়া, তার পর তুরস্ক।

কাশ্মীর নিয়ে ভারতের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে বিবৃতি দেওয়া এবং এফএটিএফ-এ পাকিস্তানকে সমর্থন করার জেরে এই দু’দেশের বিরুদ্ধে পারদ চড়ছে সাউথ ব্লকে। নিজেদের সুবৃহৎ বাজারকে ব্যবহার করে এই দু’দেশের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নেওয়ার রাস্তায় হাঁটছে মোদী সরকার। 

এর আগে মালয়েশিয়া থেকে পাম তেল আমদানি এক ঝটকায় অনেকটা কমিয়ে তা ইন্দোনেশিয়া থেকে পুষিয়ে নেওয়ার কথা ভাবা হয়েছে। এ বার তুরস্কের প্রতিরক্ষা সংস্থা আনাদলু শিপইয়ার্ডের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে নয়াদিল্লি। ভারতের নৌবাহিনীর জাহাজ তৈরির বরাত পায় এই সংস্থা। ভারতের বিরাট প্রতিরক্ষা বাজারে তাদের নিষিদ্ধ করা হয়েছে বলেই সূত্রের খবর। 

সাউথ ব্লকের বক্তব্য, তুরস্ক শুধুমাত্র ভারত নয়, পাক নৌসেনার জন্যও জাহাজ বানায়। সেটা ভারতের নিরাপত্তার পক্ষে ঝুঁকিপূর্ণ। প্রশ্ন উঠছে, বেশ কয়েক বছর ধরেই উপমহাদেশের এই দুই রাষ্ট্রের নৌবাহিনীর জন্য কাজ করে আসছে তুরস্ক। এখন হঠাৎ নিরাপত্তার প্রশ্নটি উঠল কেন? আসলে তুরস্কের জাহাজ সংস্থাকে নিষিদ্ধ করে ভারত তাদের শিক্ষা দিতে চাইছে বলেই মনে করছেন কূটনীতিকরা। সম্প্রতি তুরস্কের সিরিয়া আক্রমণের কড়া নিন্দা করেছে ভারত। স্থির ছিল, এই বছরের শেষে তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিচেপ তায়িপ এর্ডোয়ানের সঙ্গে বৈঠক করতে সে দেশে যাবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সূত্রের দাবি, সেই সফর স্থগিত রাখা হয়েছে।