শুল্ক-যুদ্ধে ওয়াশিংটনকে পাল্টা জবাব নয়াদিল্লির। স্টিল ও অ্যালুমিনিয়ামের মতো ভারতীয় পণ্যের উপর শুল্ক চাপানোর সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর এ বার ২৮টি মার্কিন পণ্যের উপর চড়া আমদানি শুল্ক চাপাল নরেন্দ্র মোদী সরকার। এর ফলে রবিবার থেকেই দাম বাড়বে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে আমদানি করা আপেল, আখরোট, আমন্ডের মতো ২৮টি পণ্যের। কারণ, ওই পণ্যগুলি এ দেশে পাঠাতে আগের থেকে বেশি শুল্ক দিতে হবে মার্কিন ব্যবসায়ীদের। ভারতের উপর থেকে বাণিজ্য সংক্রান্ত বিশেষ সুবিধা সরিয়ে নিতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র।

ক্ষমতায় আসার পর থেকেই বাণিজ্য ঘাটতি মেটাতে সক্রিয় হয় ডোনাল্ড ট্রাম্প সরকার। যে সব দেশের সঙ্গে তাদের অতিরিক্ত মাত্রায় বাণিজ্য ঘাটতি রয়েছে, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেন ট্রাম্প। চলতি বছরের ৫ জুন ভারতের উপর থেকে ‘জেনারেইলাজড ট্রেডিং প্রেফারেন্সেস’ (জিএসপি)-এর সুবিধা প্রত্যাহার করে নেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে ওয়াশিংটন। স্বাভাবিক ভাবেই সেই সিদ্ধান্তে অখুশি নয়াদিল্লি। কারণ, ওই সুবিধার আওতায় ৫৬০ কোটি মার্কিন ডলার মূল্যের পণ্য কোনও শুল্ক ছাড়াই রফতানি করতে পারত ভারত।  সেই সুবিধা হাতছাড়া হওয়ায় ক্ষুব্ধ মোদী সরকার। পাশাপাশি, স্টিল ও অ্যালুমিনিয়ামের উপর থেকে চড়া শুল্ক প্রত্যাহারের জন্য ভারতের দাবি খারিজ করে দিয়েছে ওয়াশিংটন। ফলে ওয়াশিংটনের সঙ্গে নয়াদিল্লির শুল্ক-যুদ্ধ নয়া মাত্রা পায়।

এই আবহে গত বছর জুনে বেশ কিছু মার্কিন পণ্যের উপর আমদানি শুল্ক প্রায় ১২০ শতাংশ পর্যন্ত বৃদ্ধির নির্দেশ দিয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার। যদিও দু’দেশের মধ্যে শুল্ক নিয়ে আলোচনা চলায় সে নির্দেশ বার বারই পিছিয়ে দিয়েছে নয়াদিল্লি। তবে জিএসপি-এর সুবিধা প্রত্যাহার করার পর ভারতও আর চুপ করে বসে থাকেনি। এর পর ২৮টি মার্কিন পণ্যের উপর আমদানি শুল্ক চাপানোর কথা ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় সরকার।

আরও পড়ুন: পুলওয়ামার কায়দায় ফের হামলা হতে পারে কাশ্মীরে, এ বার সতর্ক করল পাকিস্তান

আরও পড়ুন: টাকার জন্য মহিলাকে রাস্তায় ফেলে পেটাল কংগ্রেস নেতার ভাই!

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।