প্যারিস থেকে নিউ ইয়র্ক যাওয়ার পথে উড়ানটি অতলান্তিক মহাসাগরের উপরে। আচমকা প্রসবযন্ত্রণা ওঠে ৪১ বছর বয়সি এক মহিলার। ডাক্তারের খোঁজ পড়ে। এগিয়ে আসেন বছর সাতাশের ভারতীয় বংশোদ্ভূত সিজ হেমল। ক্লিভল্যান্ড ক্লিনিকের গ্লিকম্যান ইউরোজিক্যাল অ্যান্ড কিডনি ইনস্টিটিউটের দ্বিতীয় বর্ষের ইউরোলজি ছাত্র। তিনিই প্রসব করান ওই মহিলার। শিশুপুত্রের জন্ম হয়।

গত ১৭ ডিসেম্বরের ঘটনা হলেও সম্প্রতি তা সামনে এসেছে। বাচ্চাটির নাম জেক। সুস্থই আছে সে ও তার মা। প্রথমে দিল্লি থেকে প্যারিস গিয়েছিলেন হেমল। সেখান থেকে নিউ ইয়র্ক যাচ্ছিলেন ক্লিভল্যান্ডগামী উড়ান ধরতে। নিউ ইয়র্কগামী উড়ানে তিনি শ্যাম্পেন খেয়ে ঘুমনোর চেষ্টা করছিলেন। কিন্তু হইচই শুনে দেখেন, কম্বল চাপা দেওয়া মহিলা যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন। প্রথমে হেমল বোঝেননি যে, মহিলা অন্তঃসত্ত্বা। হেমলের কথায়, ‘‘ভেবেছিলাম কিডনিতে পাথর। পরে বুঝলাম, উনি ৩৯ সপ্তাহের অন্তঃসত্ত্বা।’’ এর পর উড়ানের আর এক চিকিৎসকের সাহায্য নিয়ে তিরিশ মিনিটে মহিলার প্রসব করান হেমল। জুতোর ফিতে দিয়ে বেঁধে নাড়ি কেটে দেন তিনি। হেমল জানান, উড়ানের মধ্যেই প্রসব করানোর সিদ্ধান্ত ঠিক ছিল। এর আগেও সাত বার প্রসব করিয়েছেন। ৩৫ হাজার ফুটে এই প্রথম!