বেড়াতে গিয়ে হোটেল থেকে জিনিসপত্র চুরি! ভারতীয় পর্যটকদের একাংশের এমন আচরণ নিয়ে অভিযোগ উঠেছে বার বার। সম্প্রতি সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে ওঠা এমনই এক ভিডিয়ো ঘিরে ফের দানা বাঁধল সেই বিতর্ক।

সোশাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া ওই ভিডিয়োটি রবিবার হাউডি মোদীর সভার দিন হিউস্টনেরই একটি হোটেলে তোলা বলে দাবি করা হয়েছে। তার কমেন্ট সেকশনে গিয়ে জানা গিয়েছে, রবিবার হিউস্টনের এনআরজি স্টেডিয়ামে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সভা ঘিরে যখন পারদ চড়ছে, তখনই ক্যামেরায় ধরা পড়েছে ভারতীয় দম্পতির ওই কাণ্ড। যদিও, ভিডিওটির সত্যাসত্য বিচার করা হয়নি।

কী রয়েছে ওই ভিডিয়োয়? এক মিনিট নয় সেকেন্ডের ওই ভিডিওয় দেখা যাচ্ছে, হোটেলের একটি টেবলে খাচ্ছেন এক জন পুরুষ ও এক জন মহিলা। আশপাশের সকলেই যখন খাবার খেতে ব্যস্ত, তখন আচমকাই ‘সক্রিয়’ হয়ে উঠেছেন ওই মহিলা। প্লেট থেকে ধোকলা তুলে নিয়ে নিজের ব্যাগে ঢোকাতে দেখা গিয়েছে তাঁকে। চুরির সময় অত্যন্ত সতর্ক ছিলেন ওই মহিলা। আশপাশের কেউ তাঁর উপর নজর রাখছে কিনা তাও বার বার লক্ষ্য করেছেন তিনি। কিন্তু, শেষ পর্যন্ত ক্যামেরায় ধরা পড়ে গিয়েছে ‘মহাবিদ্যা’।

ভাইরাল হওয়া ভিডিয়ো।

আরও পড়ুন: তৃণমূলে কঠোর, বিরোধীতে নরম কেন? প্রশাসনিক সভায় পুলিশকে কড়া ধমক মুখ্যমন্ত্রীর

আরও পড়ুন: উরির কায়দায় আত্মঘাতী হামলা চালাতে পারে জইশ, সতর্কতা জারি হল বায়ুসেনা ঘাঁটিগুলিতে

এমন কাণ্ড অবশ্য প্রথম নয়। বিদেশে বেড়াতে গিয়ে ভারতীয়দের এমন লজ্জাজনক ঘটনা ঘটানোর উদাহরণ বহু রয়েছে। গত জুলাই মাসেই ইন্দোনেশিয়ার বালি দ্বীপে বেড়াতে গিয়ে এমন কাণ্ড ঘটান এক ভারতীয় দম্পতি। হোটেলের ঘর থেকে শ্যাম্পু, সাবান, তোয়ালে, হেয়ার ড্রায়ার এমনকি পেন্টিং পর্যন্ত সুটকেসে ভরে রওনা দিয়েছিলেন তাঁরা। কিন্তু, হোটেল থেকে বেরনোর মুখে কর্মীরা তাঁদের ব্যাগ পরীক্ষা করেন। সেই সময় ধরা পড়ে যান ওই দম্পতি। ২০১৭ সালে বিমানবন্দরে এক প্রবাসীর ব্যাগ থেকে আম চুরি করেছিলেন দুই ভারতীয়। সেই অপরাধে গত মঙ্গলবার ওই দুই ভারতীয়কে দেশে ফিরে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরশাহির এক আদালত। এটা স্পষ্ট যে, বেড়াতে গিয়ে ফলমূল, অন্যান্য খাবার দাবার বা অন্য কিছু নিয়ে চলে আসার অভ্যাস তৈরি হয়েছে ভারতীয় পর্যটকদের একাংশের মধ্যে। পরিস্থিতি এমন জায়গায় পৌঁছেছে যে, শুধুমাত্র ভারতীয় অতিথিদের উদ্দেশে নোটিস দিতে হয় একটি সুইস হোটেলকে। তাতে বলা হয়েছিল, ‘ভারতীয় অতিথিরা হোটেলের ডাইনিং হলে যত খুশি ব্রেকফাস্ট খান। কিন্তু, সেই খাবার কখনই যেন হোটেলের রুমে না নিয়ে যান।’