• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বিতর্কিত সেনা সংস্থা ঘিরেই জট চাবাহারে

Chabahar
চাবাহার বন্দর। ফাইল চিত্র।

ইরানের সামরিক বাহিনীর শাখা ইসলামিক রেভোলিউশনারি গার্ড কোর (আইআরজিসি)-র একটি সংস্থা খাতাম আল-আনবিয়া-কে চাবাহার-জাবেদিন রেলপ্রকল্প নির্মাণের বরাত দিয়েছিল ইরান। ওই সংস্থা সম্পর্কে সরাসরি আমেরিকার নিষেধাজ্ঞার কারণে গত বছরের ডিসেম্বরে সংস্থাটিকে সরানোর জন্য তেহরানকে অনুরোধ করেছিল নয়াদিল্লি। কিন্তু সেই অনুরোধে কান দেয়নি ইরান। কূটনৈতিক সূত্রে জানা গিয়েছে, মূলত এই কারণেই এই প্রকল্পে এখনও অর্থ বিনিয়োগ করতে এবং অংশ নিতে পারছে না ভারত।

ঘটনা হল, ইরান সম্পর্কে আমেরিকার নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও যথেষ্ট কাঠখড় পুড়িয়ে সে দেশের সঙ্গে চাবাহার বন্দরের যৌথ প্রকল্পটিকে বহাল রাখতে পেরেছিল মোদী সরকার। কিন্তু আমেরিকার দিক থেকে বিশেষ শর্ত দেওয়া হয়েছিল যে, ইরানের সামরিক বাহিনীর সঙ্গে কোনও ভাবেই কোনও প্রকল্পে যুক্ত হওয়া চলবে না। এই আইআরজিসি-র উপর আমেরিকার  ‘সেকেন্ডারি স্যাংশান’ রয়েছে। অর্থাৎ, কোনও তৃতীয় পক্ষ (দেশ) এই সেনা শাখার সঙ্গে প্রকল্পে যুক্ত হলে আমেরিকা সেই তৃতীয় পক্ষের বিরুদ্ধেও নিষেধাজ্ঞা জারি করতে পারে তৎক্ষণাৎ।

ভারতের পক্ষ থেকে গত বছর রাষ্ট্রায়ত্ত রেল সংস্থা ইরকন রেল প্রকল্পটির প্রাথমিক সমীক্ষা করে। বিষয়টি জানতে পেরে কোনও ঝুঁকি না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় সাউথ ব্লক। আইআরজিসি-র এই সংস্থা ইরানের পরমাণু প্রকল্পের নির্মাণ কাজেও শামিল। ভারতের তরফ থেকে ইরানকে বলা হয়, এমন কোনও সংস্থাকে দায়িত্ব দিতে, যার উপর আমেরিকার খাঁড়া ঝুলছে না। সূত্রের খবর, এই পরিবর্তন করতে কোনও পদক্ষেপ করেনি তেহরান। বরং তারা নিজেরাই এই রেলপ্রকল্পে টাকা ঢেলে প্রাথমিক কাজ শুরু করে নয়াদিল্লির উপর চাপ তৈরি করছে বলে মনে করছে কূটনৈতিক শিবির।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন