পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনখোয়ায় জোড়া জঙ্গি হামলায় ন’জন নিহত হয়েছেন। আহত কমপক্ষে ৪০ জন। হামলার দায় স্বীকার করেছে জঙ্গি সংগঠন তেহরিক-এ-তালিবান পাকিস্তান(টিটিপি)। 

খাইবার পাখতুনখোয়ার ডেরা ইসমাইল খানে একটি চেক পোস্টে প্রথম হামলাটি চালায় বন্দুকবাজেরা। তার পরের আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটানো হয় জেলা হাসপাতালে। জেলা পুলিশ প্রধান সালিম রিয়াজ জানিয়েছেন, দু’টি মোটরবাইকে করে চার জন বন্দুকধারী একটি চেক পোস্টে হামলা চালায়। ঘটনাস্থলেই দুই পুলিশকর্মী নিহত হন। ওই দুই পুলিশকর্মীর দেহ জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর অ্যাম্বুল্যান্স ঘিরে ভিড় করেন লোকজন। সেই সময় বোরখা পরিহিত এক মহিলা বিস্ফোরণ ঘটায়। ওই বিস্ফোরণে হাসপাতাল চত্বরে চার পুলিশকর্মী-সহ সাত জন নিহত হন। সূত্রের খবর, আহতদের অনেকের অবস্থাই আশঙ্কাজনক। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। পুলিশ জানিয়েছে, আত্মঘাতী ওই মহিলা জঙ্গি আগে থেকে হাসপাতালে বসেছিল। রীতিমতো পরিকল্পনা করে টিটিপি জোড়া হামলা চালিয়েছে। আত্মঘাতী জঙ্গি প্রায় সাত থেকে আট কিলোগ্রাম বিস্ফোরক ব্যবহার করেছিল বলে জানিয়েছেন রিয়াজ। 

হাসপাতালের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। রিয়াজ জানিয়েছেন, হাসপাতালের প্রবেশের সময় প্রত্যেক ব্যক্তিকে তল্লাশি করা হয়। কিন্তু এলাকার প্রথা মেনে মহিলাদের ছাড় দেওয়া হয়ে থাকে। কোনও মহিলাকে আত্মঘাতী জঙ্গি হিসেবে ব্যবহার করা হবে, তা প্রশাসন অনুমান করেনি। ওই এলাকায় এই প্রথম কোনও মহিলা জঙ্গি আত্মঘাতী হামলা চালাল।