পুলিশের গুলিতে ১৭ বছরের এক কিশোরীর মৃত্যু ঘিরে অসন্তোষ আমেরিকায়। নিহত কিশোরী হ্যানা উইলিয়ামসের পরিবারের অভিযোগ, মেয়েকে কেন গুলি করা হয়েছে তা স্পষ্ট নয় তাদের কাছে। ক্যালিফর্নিয়ার স্টেট অ্যাটর্নি জেনারেলের কাছে নিরপেক্ষ তদন্ত চেয়েছে তারা। 

হ্যানার মা পিলার লুনি জানিয়েছেন, গত শুক্রবার বিকেলে লুনি দেখেন হ্যানা বাড়িতে নেই। তাকে ফোনে না পেয়ে পুলিশে খবর দেন কিশোরীর বাবা বেনসন উইলিয়াম। পর দিন ভোরে খবর আসে দক্ষিণ ক্যালিফর্নিয়ার ৯১ ফ্রিওয়ের উপরে পুলিশের গুলিতে মৃত্যু হয়েছে হ্যানার। পরে জানা যায়, হ্যানাকে গুলি করার ৯০ মিনিট বাদে পুলিশে ফোন করে নিখোঁজ হওয়ার অভিযোগ জানিয়েছিলেন বেনসন।   

অরেঞ্জ কাউন্টির সরকারি আইনজীবীরা জানিয়েছে, ইউনিফর্ম পরা এক অফিসার সন্ধ্যা সাতটা নাগাদ ‘পুলিশ’ লেখা গাড়িতে ৯১ ফ্রিওয়ে দিয়ে যাচ্ছিলেন। তখনই প্রবল গতিতে ছুটে চলা হ্যানার গাড়ির মুখোমুখি হন তিনি। পুলিশের একটি সূত্র জানাচ্ছে, হ্যানার গাড়ির পিছনে ধাওয়া করে সেটি থামানোর চেষ্টা করেন ওই অফিসার। কিন্তু বেপরোয়া ভাবে ওই কিশোরী ইউ-টার্ন নিয়ে ভুল রাস্তায় ঢুকে পড়ে। একটি ভিডিয়ো ফুটেজে দেখা গিয়েছে, নিজের গাড়ি থেকে নেমে হ্যানার ভ্যানের দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন ওই পুলিশ অফিসার। চালকের আসনের দিক দিয়ে ভিতরে ঢোকার চেষ্টা করলে বাধা দেয় ওই কিশোরী। এর পরে দেখা যায় দু’হাত উপরে তুলে ওই অফিসারের সঙ্গে হেঁটে যাচ্ছে হ্যানা। এর পরেই গুলির আওয়াজ পাওয়া যায়। এবং দেখা যায়, মাটিতে লুটিয়ে পড়ে সাহায্যের জন্য চিৎকার করছে কিশোরী। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে তার মৃত্যু হয়। তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, হ্যানার দেহের পাশ থেকে একটি নকল পিস্তল মিলেছে। কিন্তু কোন পরিস্থিতিতে হ্যানাকে গুলি করা হয়েছে তা নিয়ে প্রশ্ন তুলে তদন্ত দাবি করেছে পরিবার। মেয়ের মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ বাবা বেনসন বলেছেন, ‘‘এখনও মনে হচ্ছে ও দরজায় বেল বাজাবে।’’