ফিরে এল স্ক্রিপাল আতঙ্ক! ব্রিটেনের প্রাক্তন রুশ চর সের্গেই স্ক্রিপাল আর তাঁর মেয়ে ইউলিয়ার উপরে রাসায়নিক হামলা হয়েছিল গত ৪ মার্চ। ব্রিটেনের স্যালিসবেরিতে একটি শপিং মলের সামনে শিশুদের খেলার জায়গায় বেঞ্চ অচেতন অবস্থায় পাওয়া গিয়েছিল দু’জনকে। এ বার সেখান থেকে প্রায় দশ মাইল দূরে উইল্টশায়ারের এমসবেরিতে একটি বাড়ি থেকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে এক দম্পতিকে। অতিরিক্ত মাদক, না কি রাসায়নিক হামলা— তা নিয়ে ধোঁয়াশার মধ্যেই ছড়িয়েছে আতঙ্ক।

শনিবার রাতে এমসবেরির মাগলটন রোডের বাসিন্দারা কেউ রাতের খাবার সারছেন, কেউ খেলা দেখছিলেন টিভিতে। হঠাৎই পুলিশের হুটার ও অ্যাম্বুল্যান্সের সাইরেনের শব্দ। পুলিশ এসেই এলাকার সব বাসিন্দাকে বাড়ি থেকে বেরোতে বারণ করে দেয়। প্রায় আড়াই ঘণ্টা ধরে চলে অভিযান। জানলা দিয়ে কেউ কেউ দেখতে পান, সবুজ জ্যাকেটে কয়েক জন অ্যাম্বুল্যান্সে তুলে নিয়ে গেল দু’জনকে। উদ্বেগ ছড়ায়, তেজস্ক্রিয় রাসায়নিক ছড়ায়নি তো এলাকায়!

পুলিশ জানাচ্ছে, ওই দম্পতির চিকিৎসা চলছে স্থানীয় হাসপাতালে এখনও জ্ঞান ফেরেনি তাঁদের। বছর চল্লিশের পুরুষ ও মহিলার পরিচয় প্রকাশ করেনি পুলিশ। যে বাড়ি থেকে তাঁদের উদ্ধার করা হয়েছে, সেটি সিল করে দেওয়া হয়েছে। স্যালিসবেরির কিছু এলাকায় যাতায়াত ছিল ওই দম্পতির। ফলে সেখানকার প্রতিটি জায়গাও ঘিরে রাখা হয়েছে।

স্ক্রিপালদের উপর ‘নভিচক’ গোত্রের এক নার্ভ এজেন্ট দিয়ে হামলা হয়েছিল বলে ধারণা পুলিশের। অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন এক পুলিশকর্মীও।   এমসবেরির দম্পতির ক্ষেত্রে ঠিক কী হয়েছে, তা নিয়ে এখনই মুখ খুলছে না পুলিশ। পুলিশ-কর্তারা জানাচ্ছেন, কিছু গুরুত্বপূর্ণ শারীরিক পরীক্ষার রিপোর্ট না-আসা পর্যন্ত ওই দম্পতির সঙ্গে আসলে কী হয়েছে, তা বলা সম্ভব নয়। তাঁদের বক্তব্য, সতর্কতা হিসেবেই বাড়িটির আশপাশে কাউকে ঘেঁষতে দেওয়া হচ্ছে না। উইল্টশায়ার পুলিশ ও অপরাধ দমন শাখার কমিশনার অ্যাঙ্গাস ম্যাকফারসন  বলেছেন, ‘‘স্ক্রিপালদের সঙ্গে এই ঘটনার মিল রয়েছে, তা নিশ্চিত করে বলার সময় এখনও আসেনি। তবে আমরা ঝুঁকি নিতে চাই না।’’