রাশিয়ার গুপ্তচর সের্গেই স্ক্রিপাল এবং তাঁর মেয়ে ইউলিয়ার উপরে যারা রাসায়নিক হামলা চালিয়েছিল, বুধবার সেই দুই সন্দেহভাজনের নাম প্রকাশ করল লন্ডন পুলিশ। তারা জানিয়েছে, মার্চ মাসের এই ঘটনায় আলেকজ়ান্দার পেত্রভ এবং রুসলান বশিরভ নামে এই দুই রুশ নাগরিকই যে জড়িত তাতে আর কোনও সন্দেহ নেই। ওদের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে যথেষ্ট প্রমাণ রয়েছে। তবে পুলিশের সন্দেহ, নাম ভাঁড়িয়েই তারা লন্ডনে ঢুকেছিল।

তদন্তে জানা গিয়েছে, ২ মার্চ ঘটনার দু’দিন আগে অভিযুক্তেরা মস্কো থেকে লন্ডনের গ্যাটউইক বিমানবন্দরে পৌঁছয়। এর পর বো রোডের একটি হোটেলে ওঠে। ৪ মার্চ তারা সলসবেরি পৌঁছয়। এখানেই স্ক্রিপালদের বাড়ি। বাড়ির দরজার হাতলে ‘নোভিচক’ নামে একটি মারণ রাসায়নিক ছড়িয়ে তারা পালায়। ওই এলাকার কিছু সিসিটিভি ফুটেজে তাদের ছবি ধরা পড়েছে। পরের দিনই তারা হিথরো বিমানবন্দর থেকে মস্কোর বিমানে ওঠে।

মাসখানেক পরের একটি ঘটনার সঙ্গে স্ক্রিপাল-হামলার যোগসূত্র পেয়েছে পুলিশ। ৩০ জুন অ্যামসবেরির দুই বাসিন্দা ডন স্টারগেস ও চার্লি রাওলি আবর্জনার স্তূপের মধ্যে একটি বাক্স খুঁজে পান। বাক্সে ছোট্ট একটি সুগন্ধির বোতল পায় তারা। বোতলে তখনও কিছু তলানি ছিল। ডন সেটুকু মেখে নেন গায়ে। এর পরেই অসুস্থ হয়ে পড়েন তাঁরা। হাসপাতালে মৃত্যু হয় ডনের। বেশ কিছু দিন পরে ছাড়া পান চার্লি। চিকিৎসকেরা জানান, নোভিচক গোত্রের নার্ভ এজেন্টের প্রভাবে তাঁরা অসুস্থ হন। তদন্তে নেমে পুলিশ জানায়, ওই সুগন্ধির বোতলেই নোভিচক ভরে স্ক্রিপালদের বাড়ির দরজায় ছড়িয়েছিল অভিযুক্তরা। পাশাপাশি, লন্ডনে হোটেলের যে ঘরে তারা ছিল সেখানেও অস্তিত্ব মিলেছে নোভিচকের।