একটি স্কুলের নিরাপত্তা রাতারাতি বেশ কয়েক গুণ বাড়ানো হল। যে কারণে নিরাপত্তা বাড়ল, তা নিয়ে স্কুলটির সমালোচনা করে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষ সরব হয়েছেন। বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে খবরের শিরোনামেও চলে এসেছে স্কুলটির নাম। কেন জানেন? কারণ, স্কুলের নতুন  ইউনিফর্ম।

অবাক হচ্ছেন! এমনটাই হয়েছে টোকিওর তাইমেই প্রাইমারি স্কুলে।

সম্প্রতি স্কুল কর্তৃপক্ষ ইউনিফর্ম বদলের সিদ্ধান্ত নেন। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, গত সপ্তাহে স্কুলের পুরনো ইউনিফর্মের পরিবর্তে জায়গা করে নেয় ঝাঁ চকচকে একটি ব্র্যান্ডেড ইউনিফর্ম। ভাবছেন স্কুলের ইউনিফর্ম, তা-ও আবার ব্র্যান্ডেড!

আরও পড়ুন: বিমানে বসে এসি-র হাওয়ায় অন্তর্বাস শুকোলেন মহিলা!

সংবাদ সংস্থা এএফপি সূত্রে খবর, টোকিওর এই স্কুলটির ইউনিফর্মগুলি বিখ্যাত ইতালীয় পোশাক প্রস্তুতকারী ব্র্যান্ড ‘আর্মানি’র তৈরি। এই ইউনিফর্মগুলির একেকটি সেটের দাম প্রায় ৮০ হাজার ইয়েন (৫৫০ ইউরো)। অর্থাত্, এই স্কুলের একটি ইউনিফর্মের দাম ভারতীয় মূল্যে প্রায় ৪৯ হাজার ৫০০ টাকা।

কেন এত দাম এই ইউনিফর্মগুলির? শার্ট, প্যান্ট বা স্কার্ট, টাই, ব্লেজার এবং এর সঙ্গে মানানসই ব্যাগ— সব মিলিয়ে ‘আর্মানি’র এই ডিজাইনার ইউনিফর্মের দাম দাঁড়াচ্ছে ৮০ হাজার ইয়েনেরও বেশি।


এই পোশাককে ঘিরেই যত বিতর্ক।

এএফপি-কে স্কুলের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, এই নতুন ইউনিফর্ম আসার পর থেকেই পথেঘাটে ছাত্রছাত্রীদের হেনস্থার শীকার হতে হচ্ছে। আর সবটাই হচ্ছে মূলত এই দামি পোশাকের জন্য। শুধু তাই নয়, কেন এত দামি ইউনিফর্ম চালু করা হল, তা নিয়েও ব্যাপক বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয় স্কুল কর্তৃপক্ষকে। ইউনিফর্মের দাম আর স্কুল কর্তৃপক্ষের এই সিদ্ধান্তকে কেন্দ্র করে চলতে থাকা বিক্ষোভের জেরে ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে খবরের শিরোনামেও চলে এসেছে স্কুলটির নাম। শুধু তাই নয়, সোশ্যাল মিডিয়াতেও এ নিয়ে সমালোচনায় সরব হয়েছেন বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের অসংখ্য মানুষ।

আরও পড়ুন: কামড়ানোর প্রতিশোধ নিতে সেই সাপেরই মাথা চিবিয়ে খেলেন!

এমনিতে জাপানের রাস্তাঘাট যথেষ্টই নিরাপদ। স্কুলের সামনে নিরাপত্তারক্ষীদের ভিড়ও খুব একটা দেখা যায় না। কিন্তু ‘আর্মানি’ ডিজাইনার ইউনিফর্ম চালু হওয়ার পর টোকিওর দেড়শো বছরের প্রাচীন এই স্কুলটিকে ঘরে-বাইরে সংবাদ মাধ্যমে, সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র সমালোচনার মুখে পড়তে হচ্ছে। জানা গিয়েছে চাপের মুখে ‘আর্মানি’ ডিজাইনার ইউনিফর্মকে বাধ্যতামূলক নয় বলে জানিয়ে দিয়েছে স্কুল কর্তৃপক্ষ।

কিন্তু তাতেও বিতর্ক থামেনি। কারণ, স্কুলের অনেক অভিভাবক এবং সমালোচকদের দাবি, ছাত্রছাত্রীরা কেউ পুরনো ইউনিফর্ম বা কেউ নতুন ডিজাইনার ইউনিফর্ম পরলে তা রীতিমতো বৈষম্যমূলক। শুধু তাই নয়, যে সব ছাত্রছাত্রী দামি ‘আর্মানি’ ইউনিফর্ম পরে স্কুলে আসবে তাদের হেনস্থার একটা আশঙ্কা তো থেকেই যাচ্ছে। তাই সব মিলিয়ে এখন রীতিমতো বেকায়দায় পড়েছেন স্কুল কর্তৃপক্ষ।