সরকারি খাতায় বিলটির নাম, ‘ফেয়ারনেস ফর হাই-স্কিলড ইমিগ্রান্টস অ্যাক্ট অব ২০১৯’। মুখে মুখে তার পরিচিতি ‘এইচআর ১০৪৪’ বা গ্রিনকার্ড বিল বলেই। বুধবার মার্কিন হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভস-এ বিপুল ভোটে পাশ হয়ে গেল এই বিল। ফলে দেশ-পিছু বছরে ৭% গ্রিনকার্ড মঞ্জুর করার সীমারেখা উঠে যাওয়ার দিকে এক ধাপ এগোনো গেল, যেটা ভারতীয় পেশাদারদের পক্ষে স্বস্তির।

গ্রিনকার্ড হল ভিনদেশি নাগরিকদের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ী ভাবে থাকা এবং চাকরি করার অনুমোদনপত্র। বর্তমানে যে নিয়ম চালু আছে, তাতে এক বছরে যত গ্রিনকার্ড মঞ্জুর হয়, তার মধ্যে কোনও দেশ  একা ৭%-এর বেশি পেতে পারে না। যেহেতু মার্কিন দেশে ভারতীয় পেশাদারদের সংখ্যা প্রচুর, বিশেষ করে তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রে, তাঁদের বেশির ভাগই এইচ১বি ভিসায় ওখানে যান। তার পর গ্রিনকার্ডের জন্য আবেদন করে বছরের পর বছর ধরে অপেক্ষায় থাকতে হয়। দেশপিছু ৭%-এর  সীমারেখা উঠে গেলে দক্ষ পেশাদারদের জন্য গ্রিনকার্ড পাওয়া অনেক সহজ হবে। 

গত কাল ৪৩৫ সদস্যের হাউসে ৩৬৫-৬৫ ভোটে বিলটি পাশ হয়ে যায়। এ বার সেটা সেনেটে যাবে। বিলে চাকরিভিত্তিক গ্রিনকার্ডের ক্ষেত্রে ৭ শতাংশের সীমা তুলে দেওয়ার কথা রয়েছে। আর, সপরিবার অভিবাসনের ক্ষেত্রে ৭%-এর সীমা বাড়িয়ে ১৫% করার প্রস্তাব আছে।