ইরানের পূর্বশর্ত মেনে আলোচনায় আগ্রহী নন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এক সাক্ষাৎকারে আজ তেমনটাই জানিয়েছেন তিনি। তাঁর সাফ কথা, ‘‘পরমাণু চুক্তির ধরন নিয়ে কিছু আসে যায় না। শুধু দেখতে হবে, ইরানের হাতে পরমাণু অস্ত্র কোনও অবস্থাতেই যেন না থাকে।’’

মার্কিন ড্রোনকে তাদের আকাশসীমায় পাঠিয়ে নজরদারি চালানো হচ্ছে বলে আগেই অভিযোগ জানিয়েছে ইরান। সেই যুক্তি দেখিয়েই ড্রোনটিকে ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ে নামিয়েছে তারা। আজ আবার মার্কিন প্রশাসনের এক আধিকারিক এবং প্রাক্তন গোয়েন্দা সূত্রে জানা গিয়েছে, গত সপ্তাহে ইরানের একটি গুপ্তচর গোষ্ঠীর উপরে সাইবার হামলা চালিয়েছে আমেরিকা। ইরানি গুপ্তচর ওই গোষ্ঠীর সঙ্গে সে দেশের সেনা ‘ইসলামিক রেভোলিউশনারি গার্ড কোর’-এর যোগাযোগ রয়েছে। সংবাদসংস্থা দাবি করেছে, ইরানকে প্যাঁচে ফেলতে ট্রাম্প ‘ইউএস সাইবার কমান্ড’কে গোপনে ‘হামলা’ চালানোর নির্দেশ দিয়েছিলেন। 

১৩ জুন ওমান উপসাগরে দু’টি তেলের ট্যাঙ্কে হামলা হয়েছিল। আমেরিকা জানিয়েছিল, তাতে ইরানের হাত আছে। ওই মার্কিন আধিকারিকের দাবি, ট্যাঙ্কগুলির গতিবিধির উপরে ইরান নজর রাখছিল এই গুপ্তচর গোষ্ঠীর কম্পিউটার সফটওয়্যার থেকেই। প্রাক্তন মার্কিন গোয়েন্দার দাবি, উপসাগরীয় এলাকায় নজরদারির জন্য ইদানীং ইরানের সাইবার-সক্রিয়তা বেড়েছে। বাহরাইন, সংযুক্ত আরব আমিরশাহি এবং আমেরিকা— তাদের নজরে সব সময়েই থাকছে। 

আজই মার্কিন নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন ইরানকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, ‘‘আমেরিকার বিচক্ষণতাকে দুর্বলতা বলে ভাববেন না।’’ জেরুসালেমে এক বৈঠকে ইজ়রায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর পাশে বসে বোল্টন বলেন, ‘‘ইরানকে কেউ পশ্চিম এশিয়ায় খবরদারি করার অধিকার দেয়নি।’’ গত শুক্রবার ভোররাতে ইরানের উপরে হামলা চালানোর পরিকল্পনা করেছিল আমেরিকা। ১৫০ নাগরিকের প্রাণ যেতে পারে, এই তথ্য পাওয়ার পরে সিদ্ধান্ত পাল্টান ট্রাম্প। বোল্টনের মন্তব্য, ‘‘প্রেসিডেন্ট চাননি বলে হামলা হয়নি। পরের বারও যে হবে না, এটা ভাবার কারণ নেই।’’ 

ড্রোন নিয়ে তরজায় ইরানের বিদেশমন্ত্রী মহম্মদ জাভেদ জ়রিফ আজ একটি মানচিত্র টুইট করে দেখিয়েছেন, মে মাসের শেষে তাঁদের আকাশসীমায় অনুপ্রবেশ করছে ‘গুপ্তচর’ ড্রোন। জ়রিফের বক্তব্য, গত ২৬ মে আমেরিকায় তৈরি এমকিউ ৯ রিপার (যা সামরিক হানায় ব্যবহার হয়) ইরানের আকাশসীমায় ঢুকেছিল। কয়েক দিন পরেই ইরান দাবি করে, আর একটি মার্কিন ড্রোন নামিয়েছে তারা। ইরানের পার্লামেন্টে আজ ডেপুটি স্পিকার মাসুদ পেজ়েসকিয়া বলেন, ‘‘সব দেশে গোলমাল চালাচ্ছে আমেরিকাই। তারা জঙ্গিদের অস্ত্র দিচ্ছে, আবার মুখে বলছে পারস্পরিক আপসের কথা!’’

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও।সাবস্ক্রাইব করুনআমাদেরYouTube Channel - এ।