আমেরিকার অর্থনৈতিক ও সামরিক আগ্রাসনের মুখে সঙ্কটে হুগো শ্যাভেজের দেশ ভেনেজুয়েলা। নয়াদিল্লিতে আজ সাংবাদিক সম্মেলন করে এ কথা জানালেন সে দেশের রাষ্ট্রদূত অগুস্তো মন্তিয়েল। ভারতকে পাশে থাকার আবেদন জানালেন তিনি। 

মন্তিয়েলের কথায়, ‘‘আমেরিকা যুদ্ধ করে আমাদের দেশকে ধ্বংস করে দিতে চায়। এটা তারা তেলের লোভেই করছে।’’ তাঁর বক্তব্য, তেলে নিষেধাজ্ঞার চাপিয়ে কমিয়ে দেওয়া হয়েছে রফতানি। স্পিকার তথা বিরোধী নেতা হুয়ান গুয়োইদোকে কাজে লাগিয়ে সামরিক অভ্যুত্থানের চেষ্টা হচ্ছে। অর্থনীতিতে ভেনেজুয়েলাকে একঘরে করে দেওয়ার মার্কিন চাপ তুঙ্গে। ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন এ ব্যাপারে  ইউরোপীয় ইউনিয়নের বেশ কিছু রাষ্ট্রকেও পাশে পাচ্ছে। তাঁর মতে গুয়াইদো আমেরিকার ‘প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত দালাল’ ছাড়া কিছু নয়।  

প্রচার মাধ্যমে আনতে দেওয়া হচ্ছে না, দক্ষিণ আমেরিকার এই কমিউনিস্ট দেশটির এমন বেশ কিছু তথ্য ও ভিডিয়ো ক্লিপিং সাংবাদিক বৈঠকে তুলে ধরেন ভেনেজুয়েলার রাষ্ট্রদূত। জানান, দু’দিন আগেই বিরোধী দল ও সেনাকে কাজে লাগিয়ে ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোকে হত্যা করে তাঁর সরকার উৎখাত করার চেষ্টা হয়েছিল। কিন্তু লক্ষ লক্ষ মানুষ মাদুরোর সমর্থনে রাস্তায় নেমে এই চক্রান্ত বানচাল করে দেয়। আগামী বৃহস্পতিবার মেক্সিকো, উরুগুয়ে এবং পোপের উদ্যোগে ভেনেজুয়েলা পরিস্থিতি নিয়ে একটি বৈঠক হওয়ার কথা। সেখানে অচলাবস্থা কাটানোর পথ খোঁজা হবে। 

ভারত গোড়া থেকেই মার্কিন নিষেধাজ্ঞা এড়িয়ে ভেনেজুয়েলা থেকে তেল আমদানি করছে। সরাসরি কোনও পক্ষ না নিয়ে এই সঙ্কট সম্পর্কে সাউথ ব্লকের বক্তব্য, ভেনেজুয়েলার মানুষ স্থির করবেন, তাঁদের ভবিষ্যৎ।